আপডেট :»Wednesday - 16 January 2019.-
  বাংলা-

আ’লীগ-বিএনপির বাইরে ঈদের পর নতুন জোট!

ঈদের পর নতুন জোট গঠন করছে বর্তমান মহাজোট ও ১৮ দলীয় জোটের বাইরে থাকা ক’টি দল। এগুলোর মধ্যে বিকল্পধারা বাংলাদেশ, গণফোরাম, জাসদ (রব), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ ও ফরওয়ার্ড পার্টি রয়েছে। সব মিলিয়ে ১৩টি দল নিয়ে এ নতুন জোট গঠন হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

সূত্রমতে, এ জোট গঠনে উৎসাহী দলগুলো এরই মধ্যে নিজেদের মধ্যে আলোচনা শুরু করেছে। যদিও শেষ পর্যন্ত এ জোটে কারা কারা থাকবে, কোন মূল ভিত্তির ওপর জোট গঠন হবে সেসব নির্ধারণ হবে ঈদের পর। তবে ক্ষমতাসীন মহাজোট ও বিরোধী ১৮ দলীয় জোটের বাইরে নতুন এ জোট নিজেদের স্বকীয়তা বজায় রাখতে চায় বলেই আভাস পাওয়া গেছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ প্রধান বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বাংলানিউজকে বলেন, “আমরা তো একটা না একটা কিছু করবোই। এভাবে তো বসে থাকা যায় না। দেশের অবস্থা কি তা তো আপনারা দেখতেই পাচ্ছেন। জনগণ ও দেশ রক্ষা করতে হবে। এজন্য কাউকে না কাউকে তো এগিয়ে আসতেই হবে। আমরা তো আর বসে থাকতে পারি না।”

বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দলে যাচ্ছেন কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, “ওখানে যাই আর যেখানেই যাই, একটা কিছু তো করবোই। আমাদের সমমনা কিছু দল আছে তাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। তবে এ মুহূর্তে তো আর কিছু করা সম্ভব না। ঈদের পরে আমরা বসবো। তখন সিদ্ধান্ত নেবো কোন পথে আগালে দেশ ও জনগণের কল্যাণ হবে। আমরা কোথায় থাকবো কি করবো সে সিদ্ধান্তও নেবো তখন।”

বিকল্পধারা মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান বাংলানিউজকে বলেন, “আমরা ডানেও নাই, বামেও নাই। আমরা নিজেরা একটা কিছু করে জনগণের কাতারে থাকতে চাই। আলাপ আলোচনা আমাদের মধ্যে চলছে। ঈদের পরে সিদ্ধান্ত নেবো কোন দিকে কোন পথে আগাবো। তবে আমরা জনগণের পক্ষের শক্তি হিসেবে আগামীতে একটা জোট গঠনের চেষ্টা করছি।”

এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, “এ মুহূর্তে আমাদের সম্ভাব্য জোটের দলের সংখ্যা বলা যাবে না। ৬/৭টি দলের সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে। আরও হচ্ছে।”

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগ বা বিএনপির সঙ্গে যাওয়ার চিন্তা আপাতত নেই। ভবিষ্যতে কি হবে জানি না। তবে আমরা আলাদা কিছু একটা করার চেষ্টা করছি।”

গণফোরাম সেক্রেটারি মোস্তফা মহসিন মন্টু বাংলানিউজকে বলেন, “আমরা দেখি কি করতে পারি। আমাদের মধ্যে একটা আলাপ আলোচনা চলছে। আমরা খুব শিগগিরই বসার চেষ্টা করছি।”

তিনি বলেন, “সভাসমাবেশে বক্তব্য দিলেই তো শুধু হবে না। জনগণের জন্য একটা কিছু করতে হবে। আমরা জনগণের সঙ্গে আমাদের সম্পৃক্ততা আরও বাড়ানোর চেষ্টা করছি। আগামীতে কি করতে যাচ্ছি সময়মতো দেখতে পাবেন।”

এদিকে নতুন জোট গঠনের এ উদ্যোগে জড়িতদের সঙ্গে এরই মধ্যে ১৮ দলীয় জোটনেতা বিএনপির পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নতুন জোটের এক নেতা। তবে বিষয়টি এখনই প্রকাশ্যে আনতে চাইছেন না তারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

>