আপডেট :»Monday - 22 October 2018.-
  বাংলা-
পুরানো সংখ্যা খোঁজ করুন »

কুয়েতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রবাসী পরিষদ এর আহবায়ক কমিটি গঠন

bbkমঈন উদ্দিন সরকার সুমন: ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রবাসী পরিষদ, কুয়েত এর আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। ১৯ জুলাই ২০১৮ কুয়েত সিটির মালিয়া প্যানাসনিক টাওয়ারের ১৫ তলায় দীর্ঘ আলোচনা, মতামত ও অভিমত ও সমর্থনের ভিত্তিতে উপস্থিত সবার সম্মতিক্রমে জনাব লুৎফুর রহমান মোকাই আলী কে আহবায়ক, জাহাঙ্গীর আলম দিলিপ, আকতারুজ্জামান, মাইন উদ্দিন মইন কে যুগ্ম আহবায়ক ও হাবিব মোস্তফা কে সদস্য সচিব করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলার বিভিন্ন থানার বেশ কয়েকজনকে সদস্য করে উক্ত আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়। ধারনা করা হচ্ছে কুয়েতে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ৯টি উপজেলা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা, আশুগঞ্জ উপজেলা, আখাউড়া উপজেলা, কসবা উপজেলা, নবীনগর উপজেলা, নাসিরনগর উপজেলা, বাঞ্ছারামপুর উপজেলা, সরাইল উপজেলা, বিজয়নগর উপজেলা। এবং ৫ টি পৌরসভা ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভা, কসবা পৌরসভা, আখাউড়া পৌরসভা, নবীনগর পৌরসভা, বাঞ্ছারামপুর পৌরসভার ১০০ টি ইউনিয়নের প্রায় সব অঞ্চলের ৩০ হাজারের বেশি প্রবাসী কুয়েতে আছেন। শীগ্রই সকল উপজেলার কুয়েত প্রবাসীদের সম্বন্নয়ে সংগঠনের সবার সমর্থনে একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হবে।
bbppk2
বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ আসন ছয়টি নির্বাচনী এলাকার বিস্তৃতি ২৪৩ ব্রাহ্মণবাড়িয়া- ১ নাসিরনগর উপজেলা, ২৪৪ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ সরাইল উপজেলা এবং আশুগঞ্জ উপজেলা, ২৪৫ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা বিজয়নগর উপজেলা ২৪৬ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪আখাউড়া উপজেলা এবং কসবা উপজেলা, ২৪৭ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ নবীনগর উপজেলা, ২৪৮ ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬ বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ও নবীনগর উপজেলা। ইতিহাস ও তথ্যমতে পূর্ব ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের সীমান্ত সংলগ্ন ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৮৬০ ইং সালে মহকুমা প্রতিষ্ঠিত হয়। শুরুতে ত্রিপুরা জেলার অর্ন্তভূক্ত ছিল। ভারত বিভাগের পর কুমিল্লা জেলার একটি মহকুমা হিসেবে থাকে। ১৯৮৪ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারী জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। শিল্প-সংস্কৃতি, শিক্ষা-সাহিত্যে দেশের অন্যতম অগ্রণী জনপদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া। সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ, ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ, ব্যারিস্টার এ রসুল, নবাব স্যার সৈয়দ শামসুল হুদা, কথা সাহিত্যিক অদ্বৈত মল্ল বর্মণ, কবি আবদুল কাদির, শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্তসহ বহু জ্ঞানী গুনীর জন্মধন্য জেলা ব্রাহ্মণবাড়িয়া। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা জাতীয় অর্থনীতিতেও ব্যাপক অবদান রাখছে। তিতাস গ্যাস ফিল্ড, সালদা গ্যাস ফিল্ড, মেঘনা গ্যাস ফিল্ড দেশের এক-তৃতীয়াংশ গ্যাস সরবরাহ যোগায়। আশুগঞ্জ তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র দেশের ২য় বৃহত্তম বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র। আশুগঞ্জ সার কারখানা দেশের ইউরিয়া সারের অন্যতম বৃহত্তম শিল্প কারখানা। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শিল্প সংস্কৃতির ধারক ও বাহক এবং দলমত নির্বিশেষে ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল মিলন মেলা হিসেবে এ দেশের মানচিত্রে বিশেষ মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত। ১৯২১ সালে সমগ্র মুসলিম লীগের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবাব সৈয়দ শামসুল হুদা (১৮৬২-১৯২২) এবং ব্যারিষ্টার আবদুর রসুল (১৮৭৪-১৯১৭) ছিলেন কংগ্রেস তথা ভারতবর্ষের প্রথম সারির একজন নেতা। উল্লাসকর দত্ত (১৮৮৫-১৯৬৫), সুনীতি চৌধুরী, শান্তি ঘোষ, গোপাল দেব, বীর মুক্তি যোদ্দা, বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও জ্ঞান সাধক ডঃ এম. এ. রহমানের মত অনেক ত্যাগী ও মহান নেতাদের জন্ম দিয়েছে এই ব্রাহ্মণবাড়িয়া। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার যুদ্ধের সময় বীর শ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল আখাউড়ায় শহীদ হন। বর্তমানে ১,৯২৭.১১ বর্গ কি:মি: আয়তনের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১৩২৩ হাজার গ্রাম আছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রবাসী পরিষদ, কুয়েত কমিটি গঠনকল্পে কুয়েত প্রবাসী ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসীদের নিম্নের নিম্নের সম্বন্নয়কারীদের সাথে যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা হচ্ছে । নিম্নের সম্বন্নয়কারী মাসুক ঠাকুর 66105041, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম (দিলিপ) 50881147, হাবিব মোস্তফা 99507832, মোসাহেদ হোসেন ভূঁইয়া 95565585, জাহিদ 51474000।

b b

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

>