Home / দেশ / আখাউড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা গ্রেফতার

আখাউড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা-ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা জিয়া উদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার এক আদেশে পুলিশ তার কার্যালয় থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

জানা যায়, তিন লাখ টাকার মাছের রেণু উৎপাদন ও জলাশয়ে পোনা মাছ অবমুক্তকরণ (বিল নার্সারি বাস্তবায়ন প্রকল্প) ব্যয়ের হিসাব নিয়ে ইউএনওর সাথে মৎস্য কর্মকর্তার বিবাদ হয়।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল হাসেম বলেন, গত ১১ জুলাই এক সভায় মৎস্য কর্মকর্তার কাছে বিল নার্সারির হিসাব এবং নীতিমালা চাওয়া হয়। কিন্তু তিনি নীতিমালার কাগজপত্র জমা দিলেও হিসাব নিয়ে টালবাহানা শুরু করেন। এ ব্যাপারে একাধিকবার মৌখিক ও লিখিত তাগিদ দেয়া সত্ত্বেও গড়িমসি শুরু করেন। আমি এই প্রকল্পের সভাপতি হলেও তিনি সরকারি বিধিমালা না মেনে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। কাগজপত্র উদ্ধার করতে এবং সরকারি আদেশ অমান্য করায় মৎস্য কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করতে পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়।
এ ব্যাপারে গ্রেফতারকৃত মৎস্য কর্মকর্তা জিয়াউদ্দিন বলেন, প্রকল্পের টাকা ব্যয় হয়ে গেলেও ইউএনও প্রকল্পের আরো এক লাখ টাকা অবশিষ্ট আছে বলে দাবি করে আমার কাছ থেকে এর ভাগ চান। টাকা না পেয়ে তিনি প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে আমাকে গ্রেফতারের আদেশ দেন।

আরও পড়ুন...

নগরীতে জেএসইউএস ও সিডিডি আয়োজিত প্রতিবন্ধিতা ও একীভূত উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কর্মরত জাতীয় সংগঠন সেন্টার ফর ডিজএ্যাবিলিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (সিডিডি) ও সিবিএম এর সহযোগিতায় বেসরকারী মানব উন্নয়ন মূলক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (জেএসইউএস)’র অংশগ্রহণে “প্রতিবন্ধিতা ও একীভূত উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ”গত ১৯ নভেম্বর ২০২০ ইংরেজী নগরীর দেওয়ানবাজারস্থ সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে জেএসইউএস নির্বাহী পর্ষদের সদস্য ও সংস্থার উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে আয়োজিত কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সহ-সভাপতি ফারজানা রহমান শিমু, সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাহী পরিচালক ইয়াসমীন পারভীন, ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা ও পরিচালক কবি প্রাবন্ধিক সাঈদুল আরেফীন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ ছাবের আহমেদ, নির্বাহী সদস্য শাহানাজ বেগম, সিনিয়র এসিসটেন্ট ডিরেক্টর এম এ আসাদ, এসিসটেন্ট ডিরেক্টর শহীদুল ইসলাম, সংস্থার শাখা ব্যবস্থাপকসহ অপরাপর কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সিডিডি-এর পক্ষ থেকে থিমেটিক এক্সপার্ট মো: জাহাঙ্গীর আলম, সিডিডি’র কোঅর্ডিনেটর ও প্রজেক্ট ম্যানেজার তানবিন আহমেদ, শাহ জালাল, জুনায়েদ রহমান, হীরা বণিক উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ধারণা, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অন্তর্ভূক্তি, সংস্থায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অন্তর্ভূক্তি বিষয়ে ধারণা ও সকল কর্মকাণ্ডে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে সম্পৃক্তকরণের পাশাপাশি এ সংক্রান্ত কর্মপদ্ধতি নির্ধারণসহ নানা বিষয়ে আলোচনা করা হয়। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন মো: জাহাঙ্গীর আলম। কর্মশালা পরিচালনায় মো: জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা ও নানা উদ্যোগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। সরকারের এ সংক্রান্ত অনেক আইন ও নীতিমালা রয়েছে। কিন্তু  সে অনুযায়ি সচেতনতা না থাকায় এর সুফল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গ পাচ্ছেন না। আমাদের সকলের সম্মিলত প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি সাধিত হতে পারে।” উদ্যোগ নিতে হবে আমাদের সকলকে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ প্রসঙ্গে সংস্থার পরিচালক কবি প্রাবন্ধিক সাঈদুল আরেফীন বলেন, “জেএসইউএস প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। সংস্থা অপরাপর কর্মসূচীতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অংশগ্রহণ এবং তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করে।” ভবিষ্যতে সকল প্রকল্প গ্রহণ এবং বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধিতা ইস্যুটি সর্বাগ্রে বিবেচনা করা হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি বার্তা প্রেরক মো: আরিফুর রহমান প্রোগ্রাম ম্যানেজার (এসডিপি)