Home / দেশ / কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিবিরের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন

কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিবিরের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন

মোশাররফ হোসেন শুভ, ময়মনসিংহ থেকে : “গাছে গাছে সবুজ দেশ, আমার সোনার বাংলাদেশ” এই স্লোগান কে সামনে রেখে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে ইসলামী ছাত্রশিবির কবি নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি পালন করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল বর্ণঢ্য র‌্যালী, র্বক্ষরোপণ এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে চারা গাছ বিতরণ। বর্ণাঢ্য র‌্যালীতে শত শত শিক্ষার্থী স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণ করে। র‌্যালীটি বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মু. জসিম উদ্দিন এর নেতৃত্বে ত্রিশাল শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় পুরো ত্রিশাল শহরকে মনে হয়েছে সবুজ এক নগরী। র‌্যালী শেষে সমাপনী বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয় শিবির সভাপতি বলেন, আদর্শ নাগরিক তৈরীর পাশা পাশি ছাত্রশিবির বিভিন্ন ধরনের সামাজিক কাজে আতœনিয়োগ করে থাকে। তিনি শিক্ষাথীর্দের এই আদর্শের পতাকাবাহী ছাত্র সংগঠনে আবদ্ধ হয়ে সৎ ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হয়ে সমৃদ্ধ দেশ গড়ার আহবান জানান।


হরেকৃষ্ণ উচ্চ বিদ্যালয়ে নির্বাচনের পর থেকেই প্রধান শিক্ষক উধাও ॥
মোশাররফ হোসেন শুভ, ময়মনসিংহ থেকে : রেকৃষ্ণ উচ্চ বিদ্যালয়ে নির্বাচনের পর থেকেই প্রধান শিক্ষক
উধাও ॥ সভাপতি দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেয়ায় জনমনে সংসয়।ফুলবাড়ীয়া উপজেলার দেওখোলা ইউনিয়নের হরেকৃষ্ণ উচ্চ বিদ্যালয়ের গত ৩১ মে অনুষ্ঠিত হয় অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচন। জাগজমক পূর্ণ সুষ্ঠ ও সুন্দর নির্বাচনে অভিভাবক প্রতিনিধিগণ নির্বাচিত হন। নির্বাচনের পরে সাভাবিক ভাবেই নির্বাচিতদের কাছে পূর্বের কমিটি দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়ার কথা। কিন্তু সেটি রহস্য জনক করণে হচ্ছে না বলে জানা গেছে। নির্বাচিতরা জানান, নির্বাচনের পর দিন থেকেই প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে আসছেন না। অনেক খোজা খুজি করেও প্রধান শিক্ষকরে স্বাক্ষাত পাওয়া যাচ্ছে না। এ নিয়ে এলাকায় অভিভাবকদের মাঝে ব্যাপক সংসয় ও উদ্রেগের সৃষ্টি হয়েছে। তারা ঘটনাটিকে রহস্য জনক বলে মনে করছেন। একটি সূত্র জানিয়েছে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তাজুল ইসলাম বাবলু চেয়ারম্যান দায়িত্ব বুঝিয়ে দিচ্ছেন না বলে এ সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। নির্বাচিত সদস্যরা প্রধান শিক্ষককে নিয়ে বারবার সভা ডাকার চেষ্ট করলেও তিনি সারা দেননি। উপায় অন্তর না দেখে অবশেষে নির্বাচিত সদস্যরা ফুলবাড়ীয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে বিষয়টি নিয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। নির্বাহি কর্মকর্তা ১৪ জুন অভিযোগ শুনানির জন্য নির্বাচিত সদস্যদের আহবান জানান। পরে ১৩ জুন তা স্থগিত করা হয়। পরবর্তীতে নির্বাচিত সদস্যরা বিষয়টি অবহিত করে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান এর কাছেও একটি অভিযোগ পত্র দাখিল করেছেন। গতকাল অভিভাবক ও ছাত্র/ছাত্রীরা বিদ্যালয় চলাকালীন সময়ে বিক্ষোভে ফেটে পরে। এ সমস্যাটির জরুরী সমাধান না হলে তারা আন্দোলনের হুমকি দেয়। এনিয়ে এলাকায় উত্তেজানা বিরাজ করছে। গতকাল অভিভাবক ও ছাত্র/ছাত্রীরা উত্তেজিত হয়ে পড়লে নব নির্বাচিত অভিভাবক প্রতিনিধি গণ তাদেরকে শান্ত করেন। প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে না আসার বিষয়ে বিভিন্ন অভিভাবকরা শিক্ষক শিক্ষিকাদের প্রশ্ন করলে তারা জানান, নির্বাচনের পর থেকে তিনি স্কুলেও আসেননা হাজিরা খাতায়ও স্বাক্ষর করেন না। তিনি কেথায় আছেন আমরা জানিনা। নির্বাচিত অভিভাবকগণ বিদ্যালয়ের পরিবেশ সুষ্ঠ ও সুন্দর রেখে ছেলে মেয়েদের লেখা পড়ার প্রতি সকলকে মনোযোগী হওয়ার আহবান জানান। অভিভাবকগণ জানান, পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন  না করলে আগামী দিনে আন্দোলনের কর্মসূচী দেওয়া হবে। এতে ছাত্রছাত্রীদের লেখা পড়ার ক্ষতিগ্রস্থ হবে। আমরা সে পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাই না।


নান্দাইলে স্বামীর পেনশনের টাকা থেকে বিধবাকে বঞ্চিত করার পায়তারা

মোশাররফ হোসেন শুভ, ময়মনসিংহ থেকে : ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল পৌর এলাকার গারুয়া গ্রামের আ: করিম এর কন্যা ময়না আক্তার মৃত স্বামীর পেনশনের টাকা ও ঢাকা শহরের বাসা সাভারে জমি ও কিশোরগঞ্জ পাকুন্দিয়া উপজেলার রক্ষিত জমি জমা হতে বিতারিত হয়ে বিচারের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেড়াচ্ছে। প্রাপ্ত অভিযোগ থেকে জানা যায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজের কর্মরত ডা: এম,এ হান্নান গত ১০/০২/৯৪ ইং সনে ময়না আক্তারের সাথে রেজিষ্ঠ্রী কাবিন মূলে বিবাহ হয়। তার ঘরে ১ টি ছেলে এবং ১ টি মেয়ে রয়েছে। গত ২২/৯/০৬ ইং তারিখে ডা: হান্নান কর্মরত অবস্থায় মারা যায়। মারা যাওয়ার পূর্বে ১ম স্ত্রী মোছা:খালেদাকে তারা পেনশন, বাসা বাড়ী,জমিজমার অর্থ সমান বন্টক ময়নাকে সঠিক ভাবে বুঝিয়ে দেওয়ার অচিয়ত করে যান। কিন্তু প্রথম স্ত্রী – স্বামীর পেনশনের টাকা উত্তোলন করে আত্তসাৎ করার পায়তারা করে আসছে। এমনকি স্বামীর মৃত্যুর কয়েক দিনের মাতায় ময়না ও তার দুই সন্তান কে তাড়িয়ে দিয়েছে। ময়না সন্তানদের কে নিয়ে অর্থের অভাবে মানবেতর জীবন জাপন করে আসছে।  উক্ত ঘটনাটি আপোষ মিমাংশা করার জন্য পাকুন্দিয়া উপজেলার বরুদিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার ও ডাক্তারের বাড়ীর লোক জন যথাক্রমে নাজিম উদ্দিন, আইনুল হক, আল- আমিন,আলা উদ্দিন, আ: হান্নান,শাহাব উদ্দিন গংরা শালিশ করে ডাক্তারের ১ম স্ত্রী খালেদা আক্তার দরবারে হাজির না হওয়ায় ময়নার পক্ষে প্রতিবেদন দিয়েছেন। জানা গেছে ময়না পেনশনের টাকা যাবতীয় সম্পদের সঠিক ভাবে পাওয়ার জন্য উর্ধতন কতৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

About

আরও পড়ুন...

ঈদের কেনা কাটায় সতর্ক না হলে পরিবারের জন্য মৃত্যু কিনে আমার মতো হবে-ক্যাব চট্টগ্রাম

বৈশ্বিক মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ যখন ক্রমাগত বাড়ছে, সরকার জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের পরামর্শে ২ সপ্তাহের …

error: Content is protected !!