Home / প্রযুক্তি / কম্পিউটারের ভাইরাস সমাধান মাত্র ৫ মিনিটে

কম্পিউটারের ভাইরাস সমাধান মাত্র ৫ মিনিটে

বিজ্ঞান ও তথ্য-প্রযুক্তির আধুনিক সভ্যতার যুগে বর্তমানে প্রায় সকল ক্ষেত্রেই কম্পিউটারের ব্যবহার অপরিহার্য কিন্তু কম্পিউটার প্রোগ্রাম ব্যবহারের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীদের প্রায় সম্মুখিন হতে হয় বিভিন্ন প্রকার সমস্যার।

বর্তমানে মাইক্রোসফট্‌ উইন্ডোজ অপারেটিং প্রোগ্রাম কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের মাঝে সর্বাধিক জনপ্রিয় প্রেগ্রাম। মাইক্রোসফট্‌ উইন্ডোজ অপারেটিং প্রোগ্রাম ব্যবহারের ক্ষেত্রেও মাঝে মাঝে ব্যবহারকারীদের পড়তে হয় বিভিন্ন প্রকার সমস্যা ও বিড়ম্বনার মধ্যে।

অনেক কম্পিউটার ব্যবহারকারী- বিশেষ করে ছাত্র-ছাত্রী, গৃহিনী ও শিশু তাদের কম্পিউটারের উইন্ডোজ অপারেটিং প্রোগ্রাম সঠিকভাবে ব্যবহার এবং রক্ষনাবেক্ষনের জ্ঞান সীমাবদ্ধ। আবার অভিজ্ঞ কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের মধ্যে যারা পেশাজীবী বা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা আছেন, ব্যস্ততার কারনে তারাও উইন্ডোজের সমস্যা সমাধানের জন্য নিজেই দীর্ঘ সময় ব্যয় করাতে আগ্রহী হন না নতুবা উইন্ডোজ প্রোগ্রামকে নতুন করে রি-ইনষ্টলসহ অন্যান্য এ্যাপলিকেশন প্রোগ্রাম ইনষ্টল করে উইন্ডোজকে পুনরায় ব্যবহারের উপযোগী করে তোলার জন্য ব্যয় করতে হয় তাদের প্রচুর মূল্যবান সময় ও শ্রম। আর এ সকল সমস্যার সমাধান মাত্র ৫মিনিটেই ?

এ ব্যাপারে এক সাক্ষাতকারে কুয়েরী সফট্‌ এর পরিচালক এস.এম শাহ্বাজ হোসাইন বলেন, সাধারণতঃ ভাইরাস, স্পাইওয়্যার, ম্যালওয়্যার, ইন্টারনেটের মাধ্যমে আসা ইন্টারনেট কুকি, টেম্পরারী ফাইল, প্রিফেস ফাইল, রিসেন্ট ফাইল, রেজিষ্ট্রি ফাইল, জাংক ফাইল প্রভৃতির কারনে উইন্ডোজ অপারেটিং প্রোগ্রামের স্বাভাবিক গতি কমে যায় এবং প্রোগ্রামটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়, যে কারনে ব্যবহারকারীকে পড়তে হয় বিভিন্ন প্রকার সমস্যায়।

এ সমস্ত সমস্যা থেকে উদ্ধার পাওয়ার একটাই উপায় হচ্ছে উইন্ডোজ ড্রাইভ ফরম্যাট করে নতুন করে উইন্ডোজ রি-ইনষ্টল করা। আর এটা করার সময় বাধ্যতামূলকভাবে মাদারবোর্ডের ড্রাইভার এবং প্রয়োজনীয় সফটওয়্যারও ইনষ্টল করতে হয়, যা অত্যন্ত সময় সাপেক্ষ একটি কাজ। এই কাজগুলো করতে ব্যবহারকারীকে ব্যয় করতে হয় অনেক মূল্যবান সময় অথবা একজন কম্পিউটার টেকনিশিয়ান ডাকতে হয় নতুবা নিজেকেই কম্পিউটারটি নিয়ে যেতে হয় কোন সার্ভিস সেন্টারে। বলা বাহুল্য, ঝামেলা পোহানো ছাড়াও এর জন্যে ব্যয় করতে হয় প্রচুর মূল্যবান সময় ও অর্থ।

এ সমস্যার সমাধান দিতে “কুয়েরী সফট্‌” শক্তিশালী নিরাপত্তা ব্যবস্থার সমন্বয়ে “উইন-সিকিউর” নামে একটি নতুন ও অধিক শক্তিশালী নিরাপত্তামূলক সফট্‌ওয়্যার উন্নয়ন করতে সক্ষম। এই সফট্‌ওয়্যারটি উইন্ডোজ অপারেটিং প্রোগ্রামকে উপরোক্ত সমস্যাগুলোর সমাধানে সকল পর্যায়ে ১০০% নিরাপত্তা দিতে সক্ষম। যা এ সফটওয়্যারের ব্যাকআপ রিষ্টোর প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মাত্র ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যে উইন্ডোজ প্রোগ্রামকে আবার স্বাভাবিক অবস্থানে ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

তিনি বলেন, এই সফট্‌ওয়্যারটি ১ বছর ব্যবহারের জন্য ব্যয় করতে হবে মাত্র ৫শ’ ৫৫টাকা। যদি “উইন-সিকিউর” সফট্‌ওয়্যারটি উইন্ডোজ এর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে না পারে, সেক্ষেত্রে নিশ্চয়তা প্রদানের লক্ষ্যে “কুয়েরী সফট্‌” ব্যবহারকারীকে ৩০দিনের ভিতর “উইন-সিকিউর” সফট্‌ওয়্যারের ক্রয়কৃত মুল্য ১০০% ফেরত প্রদানের অঙ্গিকার করছে। উল্লেখ্য, “উইন-সিকিউর” এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা সক্রিয় থাকা কালীন কম্পিউটারের মাত্র ১৮.৩৬ মেগাবাইট র‌্যাম ব্যবহার করে ফলে কম্পিউটারের স্পিডের তেমন কোন তারতম্য বোঝা যায় না। যদি কোন পিসি বা ল্যাপটপে ইনষ্টল করা হয় তাহলে পরবর্তীতে আর কখনও উইন্ডোজ এর কোন প্রকার সমস্যার কারনে কোন টেকনিশিয়ান ডাকার প্রয়োজন নেই। ব্যবহারকারী নিজেই খুব দ্রুত সকল সমস্যার সমাধান করে তার সময়, শ্রম ও অর্থ সাশ্রয় করতে পারবে।

তিনি আরো বলেন “কুয়েরী সফট্‌” এর এই প্রচেষ্টা শুধুমাত্র সাধারন কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের জন্য যাদের সঠিকভাবে কম্পিউটার উইন্ডোজ প্রোগ্রামের রক্ষনাবেক্ষনের জ্ঞান সীমাবদ্ধ।

এস.এইচ.এম তরিকুল ইসলাম/

আরও পড়ুন...

স্মার্টফোনের স্পীড বাড়াবেন যেভাবে

স্মার্টফোন এখন সকলের কাছে গুরুত্বপূর্ণ এক ডিভাইস হয়ে উঠেছে। অনেক সময় দেখা যায় দরকারি কাজে …

error: Content is protected !!