Home / দেশ / কসবায় কালবৈশাখীর ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন-যাপন, সাহায্য অপ্রতুল

কসবায় কালবৈশাখীর ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন-যাপন, সাহায্য অপ্রতুল


মো. অলিউল্লাহ সরকার অতুল: কসবা উপজেলার মূলগ্রাম ইউনিয়নের নেয়ামতপুর ও চন্দ্রপুর গ্রামের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখীর ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলো খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। সরকারী ভাবে এপর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। জানা যায়, গত বুধবার (৮ মে) দুপুরে কালবৈশাখীর ঝড়ে নেয়ামতপুর ও চন্দ্রপুর গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত ১৫৬টি পরিবারের ৩শতাধিক কাচা ঘরবাড়ি, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিধ্বস্ত, বহু গাছপালা ও উঠতি ফসল নষ্ট হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জালাল সাইফুর রহমান জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ত্রাণতহবিল থেকে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে ২০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। তাছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর আশ্রয়স্থল নির্মাণের জন্য ৮০ বান্ডিল ঢেউটিন ও নগদ অর্থ বরাদ্ধ করা হয়েছে। অপরদিকে মূলগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. ময়নুল হোসেন জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মাঝে ৬০ বান্ডিল ঢেউটিন ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে বিতরণ করা হবে। ক্ষতিগ্রস্ত লোকজন জানান, সরকারি ভাবে যে সাহায্য সহযোগিতা পাওয়া যাচ্ছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অতি নগন্য। ক্ষতিগ্রস্তরা সরকারের পাশাপাশি সমাজ সচেতন ব্যক্তিদেরকে সাহায্যের হাত প্রসারিত করার অনুরোধ করেন।

About

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!