Home / কুয়েত / কুয়েতে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে পুরস্কৃত সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী

কুয়েতে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে পুরস্কৃত সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী

রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামানকুয়েত থেকে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারীদের পুরস্কৃত করার মধ্য  দিয়ে কুয়েতে আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস পালিত হয়েছে।

শুক্রবার সকালে কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মাল্টিপারপাস হলে কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান এর সভাপতিত্বে এবং প্রশাসনিক কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত এর মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয় । পরে বাংলাদেশ থেকে প্রেরিত মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী এবং প্রবাসী ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী বাণী পাঠ করা হয় ।

বাণী পাঠ করেন যথাক্রমে কাউন্সেলর(শ্রম) আবুল হোসেন, কাউন্সেলর (পাসপোর্ট এবং ভিসা) জহিরুল ইসলাম খান, প্রথম সচিব ও দূতালয় প্রধান নিয়াজ মোর্শেদ, দ্বিতীয় সচিব হাসান মনিরুল মহিউদ্দিন।

আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবস উপলক্ষ্যে এই প্রথম ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠান ক্যাটাগরিতে কুয়েত থেকে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী চারজনকে পুরস্কার ও সম্মাননা প্রদান করেন কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের  মান্যবর রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান।

ব্যক্তি পর্যায়ে প্রথম আবুল কাশেম, দ্বিতীয় মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন তৃতীয়  মিজানুর রহমান এবং প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে জনতা জেনারেল ট্রেডিং কোম্পানী এর সত্বাধীকারী কয়েক বারের সিআইপি আবুল কাশেম কে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়।

মূলত ২৩ নভেম্বর কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাস একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত করে। ঐ বিজ্ঞপ্তিতে কুয়েতে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিক যারা বৈধ উপায়ে রেমিটেন্স প্রেরণ করে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে অবদান রেখেছেন তাদের স্বীকৃতিস্বরূপ সর্বোচ্চ রেমিটেন্স প্রেরণকারী হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়। 

ব্যক্তি পর্যায়ে দুই জন পুরুষ ও দুই জন নারী এবং প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে দুই জন পুরুষ ও দুই জন নারী কে পুরস্কৃত করার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছিলো। 


দূতাবাসের শ্রম কল্যাণ উইং থেকেও আবেদন ফরম ও পুরস্কার সংক্রান্ত নীতিমালা মেনে আবেদনকারীদের মধ্যে কোন নারী আবেদনকারী না থাকায় এই তিন জনকে পুরস্কৃত করা হয় । ব্যক্তি এবং  প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে  সিআইপি আবুল কাশেম দুটি  পুরস্কার লাভ করেন।

 ব্যক্তি এবং  প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ে  সিআইপি আবুল কাশেম দুটি  পুরস্কার লাভ করেন

মান্যবর রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান এর এমন  উদ্যোগ বৈধ উপায়ে রেমিটেন্স প্রেরণে অনুপ্রেরণা জাগাবে বলে মনে করেন প্রবাসীরা। অনুষ্ঠানে উল্যেখযোগ্য প্রবাসী উপস্থিত ছিলেন। 

About বাংলার বার্তা

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!