Home / কুয়েত / কুয়েতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত

কুয়েতে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত

বাংলার বার্তা নিজস্ব প্রতিবেদক: কুয়েতে যথাযোগ্য মর্যাদায়  উৎসাহ-উদ্দীপনায় পালিত হয়েছে বাংলাদেশের মহান বিজয় দিবস। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী বাংলাদেশের ইতিহাসে গুরুত্বপূর্ণ তাৎপর্য বহন করে।  বঙ্গবন্ধু শুধু দেশকে স্বাধীনতা অর্জনে নেতৃত্বই দেননি, তিনি দেশের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে একটি শক্ত ভিতও তৈরি করে দিয়েছিলেন। তিনি এ দেশের মানুষকে জাতিসত্ত্বার পরিচয় এনে দিয়েছেন। সেই হিসেবে এবছর দিবসটি দেশ বিদেশে ঝাকঝমক ভাবে পালন করা হচ্ছে।

এ উপলক্ষে কুয়েতে বাংলাদেশ দূতাবাস বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিল জাতীয় পতাকা উত্তোলন, পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াতবাণী সমুহ পাঠ, দিবসের উপর আলোচনা, মান্যবর রাষ্ট্রদূতের বক্তব্য, বঙ্গবন্ধু কর্ণারের উদ্বোধন ও পরিদর্শন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সম্মানে এক মিনিট নীরবতা পালন দোয়া এবং মোনাজাত।

১৬ ডিসেম্বর সকালে বাংলাদেশ দূতাবাসে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে বিজয় দিবসের কর্মসূচি শুরু হয়। পতাকা উত্তোলন করেন কুয়েত নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান। পরে দূতাবাসের মাল্টিপারপাস হলে আলোচনা সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াতের মধ্য দিয়ে আলোচনা সভা শুরু হয়। বাংলাদেশ থেকে প্রেরিত মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়। বাণী সমূহ পাঠ করেন যথাক্রমে মহামান্য রাষ্ট্রপতির বাণী পাঠ করেন প্রতিরক্ষা অ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবু নাসের, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন কাউন্সেলর (শ্রম) আবুল হোসেন, মাননীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন প্রথম সচিব জহিরুল ইসলাম খান ও মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করেন প্রথম সচিব ও দূতালয় প্রধান নিয়াজ মোর্শেদ।

আলোচনায় রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান বক্তব্যে বলেন  যার হাত ধরে সারা জীবন সংগ্রামের মাধ্যমে আপামর জনগন একটি গর্বিত স্বাধীন দেশের নাগরিক হিসেবে বিশ্বের কাছে মাথা উচু করে দাড়াঁতে পারি সেই মহান নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তার পাশাপাশি সকল শহিদদের প্রতিও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন। এর সাথে তিনি বর্তমান সরকারের বিভিন্ন সফলতার চিত্র তুলে ধরেন।

তিনি ছাড়াও প্রশাসনিক কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মহান বিজয় দিবসের গৌরব তাৎপর্য নিয়ে বক্তব্য দেন প্রবাসীরা।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শততম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের অংশ হিসেবে  বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন করেছে কুয়েতস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসে । বঙ্গবন্ধু কর্নারে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ভিত্তিক ছবি, তথ্যচিত্র এবং দলিলাদির প্রদর্শন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু কর্নারের মাধ্যমে বিদেশীরাও বাংলাদেশের স্বাধীনতা এবং বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারবে।

About বাংলার বার্তা

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!