Home / শীর্ষ সংবাদ / কুয়েতে ১৫ ভুয়া ট্র্যাভেল এজেন্সি বন্ধ

কুয়েতে ১৫ ভুয়া ট্র্যাভেল এজেন্সি বন্ধ

কুয়েতে লাইসেন্সবিহীন ট্র্যাভেল এজেন্সি চালাচ্ছে এমন ভুয়া ভ্রমণ ও পর্যটন অফিস এর সন্ধান পেয়েছে সিভিল এভিয়েশন। আইন লঙ্ঘনকারী এমন ১৫ টি অফিসের বিরোদ্ধে অভিযোগ ডিজিসি এবং সালিশ কমিটির কাছে প্রেরণ করার খবর পাওয়া গেছে। স্থানীয় দৈনিক আরবটাইমসে এয়ার ট্রান্সপোর্ট বিভাগের পরিচালক এবং ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল এভিয়েশন আবদুল্লাহ আল রাজি এর বরাত দিয়ে এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এতে বলা হয় বেশিরভাগ লঙ্ঘন দুই ধরণের। সংরক্ষণ ব্যবস্থা সহ রিজার্ভেশন সিস্টেমের অনুমোদন না নিয়ে লাইসেন্স বিহীন অফিস চালাচ্ছে।
লাইসেন্সবিহীন ভুয়া ভ্রমণ এবং পর্যটন অফিসগুলি বেশিরভাগ অনলাইন ব্যবসা পরিচালনা করছে।

About বাংলার বার্তা

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!