Home / কুয়েত / কুয়েতে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে নব নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের মতবিনিময় সভা

কুয়েতে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে নব নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের মতবিনিময় সভা

20200910_213520বাংলাদেশে আটকে পড়া প্রবাসীদের ব্যাপারে উপসাগরীয় দেশ গুলোর রাষ্ট্রদূতগন কুয়েতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানান আশা করা হচ্ছে বাংলাদেশ সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিক খুব শিগগিরি কুয়েতে ফিরতে পারবেন।

বুধবার ৯ই সেপ্টেম্বর কুয়েতের মিসিলা এলাকায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসে প্রবাসী গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে নব নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতের মতবিনিময় সভায় এই তথ্য দেন। তিনি প্রবাসী গণমাধ্যম কর্মীদের বিদেশীদের কাছে বাংলাদেশের ঐতিহ্য, দর্শনীয় স্থান সহ গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস তুলে ধরে দেশের প্রতি বিদেশীদের নেতিবাচক ধারণা পাল্টে দিতে সহযোগিতা করার আহ্বান করেন। এসময় রাষ্ট্রদূত প্রবাসীদের সব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে দূতাবাস কাজ করবে বলে আশ্বস্ত করেন। এজন্য সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।
20200910_213628গণমাধ্যম কর্মীরা প্রবাসীদের বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন। নতুন রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান (এনডিসি,এএফডব্লিউসি,পিএসসি,জি) কমিউনিটির বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দের সাথে পরিচিতি সভা শেষে পৃথকভাবে গণমাধ্যম কর্মী সহ কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে পৃথক সভায় মিলিত হয়ে বিভিন্ন বিষয়ে অবগত হন। সে সময় গণমাধ্যম কর্মীরা সহ আরো উপস্থিত ছিলেন ডিফেন্স এটাচে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ আবু নাসের।
মতবিনিময় সভায় প্রবাসীদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় নিয়ে বাংলাদেশী গণমাধ্যম কর্মীরা রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে কথা বলেন। এসময় রাষ্ট্রদূত প্রবাসীদের সব সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে দূতাবাস কাজ করবে বলে আশ্বস্ত করেন। এজন্য সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন- সাংবাদিক জালাল উদ্দিন, আ হ জুবেদ, শরীফ মিজান, আল আমিন রানা, সাদেক রিপন, মো. হেবজু, মরুলেখা ম্যাগাজিনের সম্পাদক আব্দুর রউফ মাওলা, সাইফুল ইসলাম সহ অনেকে।

About admin

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!