Home / দেশ / ঝালকাঠির নিজ জন্মস্থান সাতুরিয়ায় শের-ই-বাংলার ৫৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ঝালকাঠির নিজ জন্মস্থান সাতুরিয়ায় শের-ই-বাংলার ৫৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥
নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে নিজ জন্মস্থান ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে অবিভক্ত বাংলার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে  বুধবার সকাল ১১টায় শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে রেজাউল করিম কারিগরি কলেজ মাঠে আলোচনা সভা, কোরআন খানি, দোয়া, মিলাদ, শিক্ষার্থীদের মধ্যে টিশার্ট এবং বই বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আজিজ রহিম। শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ কে এম আব্দুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে টেলি কনফান্সে বক্তব্য রাখেন রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম রেজাউল করিম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  বাংলাদেশ সুৃপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চু, সাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ছিদ্দিকুর রহমান ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা মনসুর আলী এবং আবুল বাশার মিঞা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বক্তারা পদ্মাসেতুর নামকরণ শেরে-ই-বাংলার নামে করার দাবি জানান। এছাড়াও তার জন্মস্থানটিতে একটি জাদুঘর ও জন্মভিটা সংরক্ষণের দাবিও জানান তারা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অধ্যাপক ডা: আজিজ রহিম তার বক্তব্যে বলেন, শের-ই-বাংলার স্মৃতি সংরক্ষনের রেজাউল করিম সাহেব নিজস্ব অর্থায়নে উদ্যোগ নেয়ায় আমি তাকে সাধুবাদ জানাচ্ছি। যুক্তরাজ্য থেকে টেলিকনফারেন্সে ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম রেজাউল করিম বলেন, শের-ই-বাংলা রিসার্চ ইনষ্টিটিউটকে আর্ন্তজাতিক অংগনে পরিচিত করার জন্য যা যা করা পয়োজন তা আমরা বিগত কয়েক বছর যাবৎ ধারাবাহিকভাবে করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যেই আমাদের কার্যক্রম সুশিল এবং সুধী সমাজের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হয়েছে। রেজাউল করিম শের-বাংলার নামে পদ্মা সেতুর নামকরনের দাবী জানান।

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে নিজ জন্মস্থান ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া গ্রামে অবিভক্ত বাংলার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হকের ৫৪তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে  বুধবার সকাল ১১টায় শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে রেজাউল করিম কারিগরি কলেজ মাঠে আলোচনা সভা, কোরআন খানি, দোয়া, মিলাদ, শিক্ষার্থীদের মধ্যে টিশার্ট এবং বই বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। এসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. আজিজ রহিম। শের-ই-বাংলা এ কে ফজলুল হক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান আলহাজ্জ কে এম আব্দুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে টেলি কনফান্সে বক্তব্য রাখেন রিসার্চ ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম রেজাউল করিম। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন  বাংলাদেশ সুৃপ্রিম কোর্টের আইনজীবী কাজী এনায়েত হোসেন বাচ্চু, সাতুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. ছিদ্দিকুর রহমান ও স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা মনসুর আলী এবং আবুল বাশার মিঞা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বক্তারা পদ্মাসেতুর নামকরণ শেরে-ই-বাংলার নামে করার দাবি জানান। এছাড়াও তার জন্মস্থানটিতে একটি জাদুঘর ও জন্মভিটা সংরক্ষণের দাবিও জানান তারা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অধ্যাপক ডা: আজিজ রহিম তার বক্তব্যে বলেন, শের-ই-বাংলার স্মৃতি সংরক্ষনের রেজাউল করিম সাহেব নিজস্ব অর্থায়নে উদ্যোগ নেয়ায় আমি তাকে সাধুবাদ জানাচ্ছি। যুক্তরাজ্য থেকে টেলিকনফারেন্সে ইঞ্জিনিয়ার এ কে এম রেজাউল করিম বলেন, শের-ই-বাংলা রিসার্চ ইনষ্টিটিউটকে আর্ন্তজাতিক অংগনে পরিচিত করার জন্য যা যা করা পয়োজন তা আমরা বিগত কয়েক বছর যাবৎ ধারাবাহিকভাবে করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যেই আমাদের কার্যক্রম সুশিল এবং সুধী সমাজের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হয়েছে। রেজাউল করিম শের-বাংলার নামে পদ্মা সেতুর নামকরনের দাবী জানান।

About

আরও পড়ুন...

ঈদের কেনা কাটায় সতর্ক না হলে পরিবারের জন্য মৃত্যু কিনে আমার মতো হবে-ক্যাব চট্টগ্রাম

বৈশ্বিক মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের সংক্রমণ যখন ক্রমাগত বাড়ছে, সরকার জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞের পরামর্শে ২ সপ্তাহের …

error: Content is protected !!