Home / দেশ / দরিদ্রতাকে জয় করতে চলেছে বাংলাদেশ-পরিকল্পনা মন্ত্রী

দরিদ্রতাকে জয় করতে চলেছে বাংলাদেশ-পরিকল্পনা মন্ত্রী

পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  দারিদ্রতা একটি জাতীয় সমস্যা। এই সরকার দারিদ্রতা বিমোচনে কাজ করে যাচ্ছে। খুব শিগগির বাংলাদেশ দারিদ্রতাকে জয় করতে পারবে। বিশেষ করে আশ্রয়ন প্রকল্পের অধিনে থাকা দরিদ্র মানুষদের ভাগ্য উন্নয়নে বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে। এ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী নিজেই খোজ খবর রাখছেন। গতকাল শনিবার পাবনার সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের শিবরামপুর আশ্রায়ন প্রকল্পের নবনির্মিত কমিউনিটি সেন্টারের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে পরিকল্পনা মন্ত্রী এ কে খন্দকার এ সব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন আশ্রায়ন প্রকল্পের মানুষদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বিনোদনের জন্য বিভিন্ন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়েছে যা ইতি মধ্যে অনেকাংশই বাস্তবায়ন হয়েছে। এর মধ্যে স্কুল, মসজিদ, কমিউনিটি সেন্টার এবং বিদ্যুতায়নও রয়েছে। দুলাই ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম শাহজাহানের সভাপতিত্বে উক্ত আলোচনা সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার এইচ এম নূরুল ইসলাম, শিক্ষাবিদ গোলাম রসুল, সুজানগর উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আবুল কাশেম, সাধারন সম্পাদক আব্দুল ওহাব, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল গফুর মাস্টার প্রমূখ। পরে তিনি প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখেন এবং উপজেলার বিভিন্ন স্থানে কয়েকটি আনুষ্ঠানে যোগদান করেন।

সংঘাত সংঘর্ষ মামলা মোকদ্দমা অব্যাহত নিমগাছি সমাজ ভিত্তিক মৎস্য প্রকল্পে চলছে নানা
অনিয়ম দূর্নীতি ॥ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পোয়াবারো

পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার চাটমোহর  ও ভাঙ্গুড়া এবং সিরাজগঞ্জের তাড়াশ ও রায়গঞ্জ উপজেলায় নিমগাছি সমাজ ভিত্তিক মৎস্য প্রকল্পের আওতায় ৮ শতাধিক পুকুর নিয়ে শুরু হয়েছে সংঘাত, সংঘর্ষ,মামলা-মোকদ্দমা। পুকুর ইজারা প্রদানে ব্যাপক দূর্নীতির মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা হাতিয়ে নিচ্ছেন লাখ লাখ টাকা। প্রকৃত সুফলভোগীরা বঞ্চিত হচ্ছেন। পুকুরের দলদারিত্ব চলে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মী ও এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের কাছে। এসকল পুকুর নিয়ে ইতোমধ্যে হতাহতের ঘটনাও ঘটেছে। মৎস্য বিভাগের কর্তাদের দূর্নীতি প্রকাশ্য রুপ লাভ করেছে। দূর্নীতি তদন্তে স্থানীয় সংসদ সদস্যের নির্দেশে তদন্ত কমিটি গঠণ করা হয়েছে। কমিটি তদন্ত কাজ করছে। সম্প্রতি পাবনা ও সিরাজগঞ্জ জেলার ৪টি উপজেলার ৮০৩টি পুকুর গ্রামীণ ব্যাংকের কাছ থেকে সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেয়া হয়। এরশাদ সরকারের সময় পুকুরগুলো ২৫ বছরের জন্য গ্রামীণ ব্যাংকের অনুকূলে লীজ প্রদান করা হয়। সমস্ত পুকুর মৎস্য অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। পুকুরগুলো সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী সুফলভোগীদের মাঝে লীজ প্রদান করার কথা। প্রত্যেক সুফলভোগী গ্রুপে সভাপতি, সম্পাদক, ক্যাশিয়ারসহ ৭ সদস্য বিশিষ্ট একটি পরিচালনা কমিটি থাকবে। প্রত্যেক গ্রুপে ৩০% মহিলা সদস্য থাকা বাধ্যতামূলক। কিন্তু কোন কোন ক্ষেত্রে এই বিধি বিধান মানা হচ্ছেনা। সুফলভোগীদের তালিকা তৈরি ও লীজ প্রদানে ব্যাপক অনিয়ম করা হয়েছে বলে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ রয়েছে। পুকুর পাড়ে বসবাসরত ব্যক্তিদের সুফলভোগীর তালিকায় নাম দেওয়া হয়নি। তালিকায় যাদের নাম দেওয়া হয়েছে তাদের বসবাস পুকুর পাড় হতে অনেক দূরে অথবা জনপ্রতিনিধি ও তাদের আত্মীয় স্বজন কিংবা ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মী। এ নিয়ে শুরু হয়েছে সংঘাত-সংঘর্ষ। গত ৫ সেপ্টেম্বর তাড়াশ উপজেলার উলিপুর দীঘির সুফলভোগীদের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আবজাল হোসেন (৪২) নামের একজন নিহত ও মহিলাসহ অন্ততঃ ১৫ জন আহত হন। চাটমোহর উপজেলার নিমাইচড়া ইউনিয়নের কয়েকটি পুকুর নিয়ে আদালতে মামলা রয়েছে। দখলকারীরা ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে পুকুরগুলো ভোগ দখল করছে বলে অভিযোগ। এ উপজেলার শীতলাই দিঘীটি রয়েছে প্রভাবশালীদের দখলে। চাটমোহর উপজেলার ১শ’টি পুকুরের মধ্যে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ইউএনও’র যোগসাজসে ২৫টি পুকুর লীজ প্রদান করেন। এই রীজ প্রদানে ব্যাপক অনিয়ম করা হয়। হাতিয়ে ওেয়া হয় লাখ লাখ টাকা। দূর্নীতির অভিযোগ উঠলে পারনা-৩ আসনের এমপি মোঃ মকবুল হোসেন তা তদন্তে চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে আহবায়ক করে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করেছেন। কমিটি ইতোমধ্যে তদন্ত কাজ শুরু করেছেন। তদন্তকালে কমিটির সদস্যরা প্রায় সকল অভিযোগেরই সত্যতা পেয়েছেন। চাটমোহর উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ মাহবুব হোসেন খাঁন কিছু অভিযোগের সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, নানা কারণেই কিছু অনিয়মের ঘটনা ঘটেছে। নিমগাছি সমাজ ভিত্তিক মৎস্য প্রকল্প কমিটির সদস্য, তদন্ত কমিটির সদস্য ও চাটমোহর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ হেলাল উদ্দিন বলেছেন, চাটমোহরে যে সমস্যা বা অনিয়ম করা হয়েছে, তা সংশোধনের চেষ্টা চলছে। সকলের সহযোগিতাও পাওয়া যাচ্ছে। এমপি মহোদয়ের নির্দেশে দূর্নীতি ও অনিয়ম দূর করে প্রকৃত সুফলভোগীদের মাঝে পুকুরগুলো ইজারা দেবার কাজ চলছে। তিনি বলেন, এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিরা এ সকল পুকুর নিজেদের দখলে নিতে নানা ফন্দি ফিকির করছে। কমিটির অপর সদস্য উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ রওশন আলম বলেন, প্রকৃত সুফলভোগী যাচাই বাছাই করে তাদের মাঝে পুকুর ইজারা দিয়ে তা বুঝিয়ে দিলে কোন সমস্যা থাকবেনা। ভাঙ্গুড়া, তাড়াশ ও রায়গঞ্জ উপজেলায় খোঁজ নিয়ে জানা গেল সেকান অবস্থা ভয়াবহ। তাড়াশের ৫ শতাধিক পুকুরের মধ্যে বেশ কিছু পুকুর উদ্ধার করা অসম্ভব বলে জানিয়েছেন সেখানকার কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা। সুফলভোগীর তালিকা প্রনয়ন ও অমৎস্যজীবিদের তালিকাভুক্ত করার অভিযোগ সবখানেই। রায়গঞ্জের অনেক সুফলভোগীর নাম তালিকা থেকে বাদ পড়েছে বলে জানা যায়। সেখানকার সাংবাদিক ও মুক্তিযোদ্ধা দীপক কুমার কর জানান, অমৎস্যজীবিরা মৎস্যজীবি হয়েছেন। অনিয়মতো প্রকাশ্য ব্যাপার। নিমগাছি সমাজ ভিত্তিক মৎস্য প্রকল্পের সকল অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে প্রকৃত সুফলভোগীর তালিকা করে তাদের মাঝে পুকুরগুলো ইজারা প্রদানের দাবি জানিয়েছেন এলাকার সুশীল সমাজ, জন প্রতিনিধি ও সাধারণ মানুষ।

পাবনা চাটমোহরে বেসরকারি শিক্ষকদের ধর্মঘট শুরু
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  চাকুরি জাতীয়করণসহ ১৭দফা বাস্তবায়নের দাবিতে সারা দেশের ন্যায় পাবনার চাটমোহর উপজেলায় বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির আওতাধীন মাধ্যমিক স্তরের ২৬টি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা গতকাল শনিবার থেকে ধর্মঘট শুরু করেছে। আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর এ ধর্মঘট চলবে। বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির চাটমোহর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ আফসার আলী জানান, শিক্ষানীতি দ্রুত বাস্তবায়ন, সরকারি কর্মচারীদের ন্যায় সমপরিমাণ বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট, বাড়ি ভাড়া, উৎসব ভাতা, মেডিকেল ভাতাসহ ১৭ দফা দাবিতে কেন্দ্রীয় কর্মসূচী মোতাবেক আমরা ধর্মঘট শুরু করেছি। বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ছাড়াও অন্যান্য সংগঠণও এ কর্মসূচী পালন করছে।

পাবনা চাটমোহর-ছাইকোলা সড়কটির বেহাল দশা ॥ জনদূর্ভোগ চরমে
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার চাটমোহর-ছাইকোলা সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। চাটমোহর পৌর শহর থেকে ছাইকোলা বাজার পর্যন্ত ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ সড়কটির প্রায় সবখানেই বিটুমিন পিচ উঠে গেছে। ছোট বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে চাটমোহর উপজেলার হান্ডিয়াল, ছাইকোলা ও নিমাইচড়া ইউনিয়ন ছাড়াও পার্শ্ববর্তী গুরুদাস উপজেলার কাছিকাটা, গুরুদাসপুর এলাকার হাজার হাজার মানুষ নসিমন-করিমন, বাসসহ বিভিন্ন যানবাহনে চলাচল করে থাকেন। এই সড়কের বোয়ালমারী এলাকার দুটি ব্রীজ এতোটাই ঝুঁকিপূর্ন যে মাঝে মধ্যেই দূর্ঘটনা ঘটে। ব্রীজের দু’পাশ ভেঙ্গে পড়েছে। ইট খোয়া ফেলে চলাচলের উপযোগী করে রাখা হয়েছে। এ ছাড়া ধানকুনিয়া, কাঠেঙ্গা, ছাইকোলা গ্রাম এলাকার সড়ক চলাচলের একেবারেই অনুপযোগী। এলাকাবাসীর অভিযোগ সড়কটি নির্মাণ হবার পর এটি সংস্কারে তেমন কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। মাঝে মধ্যে দু’চার ট্রাক খোয়া এনে সড়কে ফেলা হয়েছে। অতি গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি ঘুরে দেখা গেছে অনেক স্থানে পায়ে হেঁটে চলাই মুশকিল। খাল খন্দকে ভরা। এলাকাবাসীর দূর্ভোগের সীমা নেই। তারা সড়কটি সংস্কারে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।

পুলিশকে ৫ হাজার টাকা বখশিষ দিয়ে চাটমোহর থানায় প্রেমিক যুগলের বিয়ে!
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ পাবনার চাটমোহরে নতুন নির্মাণকৃত বাড়ি থেকে এক প্রেমিক যুগলকে আটক করে পুলিশ। থানায় প্রায় ৭ ঘন্টা দেন-দরবার শেষে রাজনৈতিক নেতাদের চাপে এই যুগলকে বিয়ে দিয়ে দেয় পুলিশ। বিয়ের বখশ্ষি হিসেবে থানা পুলিশের আয় হয়েছে ৫ হাজার টাকা। শনিবার ছোটশালিখা (নতুনবাজার) এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। থানা সুত্র জানায়, ভাঙ্গুড়ার বোয়ালমারী গ্রামের আমজাদ হোসেনের কলেজ পড়–য়া মেয়ে আয়শা আরেফিন আশা (২০) প্রেমের টানে ছুটে আসে একই গ্রামের চাটমোহর সাব-রেজিষ্ট্রারি অফিসের অফিস সহকারি আব্দুস সামাদের কলেজ পড়–য়া ছাত্র  আবুল কাহার মানিক (২২)’র কাছে। শুক্রবার বিকেলে সাইকেলযোগে নিয়ে এসে বাবার নতুন বাড়িতে প্রেমিকাকে তোলে। বাড়িতে ওই রাতে  কেউ ছিল না। স্থানীয় সাংবাদিকদের নিকট থেকে খবর পেয়ে শনিবার দুপুরের দিকে সিভিল পোশাক পরিহিত চাটমোহর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পার্থ বিশ্বাসের নেতৃত্বে পুলিশ ওই বাড়ি থেকে ওই প্রেমিক যুগলকে আটক করে পুলিশ। আটককৃতদের জেলের ঘানি টানানোর ভয় দেখিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তা আটককৃতদের অভিভাবকদের নিকট মোটা টাকা দাবি করেন। খবর পেয়ে মথুরাপুর ইউপি চেয়ারম্যান সরদার আজিজুল হক, গুনাইগাছা এলাকার প্রভাবশালী আ’লীগ নেতা রজব আলী বাবলু ও  ডা. আব্দুল জলিল থানায় ছুটে আসেন। অত:পর চলে দেনদরবার। পাবনার পুলিশ সুপার বিকেলের দিকে থানাতে আসার কারণে দেনদরবারের সময় বাড়তে থাকে। থানার গোল চত্ত্বরে বসে সালিশ। শেষে ২ লাখ ১ টাকা দেনমোহর ধার্য করে থানার গোল ঘরে বিয়ে পড়ান পৌর এলাকার আফ্রাতপাড়া মহল্লার কাজী আব্দুর রাজ্জাক। বিয়েতে উপস্থিত সুত্র জানায়, এই বিয়ে থেকে থানায় দিতে হয়েছে ৫ হাজার টাকা। ওই পুলিশ কর্মকর্তার হাতেই এই টাকা তুলে দেন ছেলে ও মেয়ের পক্ষের লোকজন। উল্লেখ্য, এসআই পার্থ বিশ্বাস চাটমোহর থানায় যোগদানের পর থেকেই নানা দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েছেন। তার বিরুদ্ধে রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। বৃহস্পতিবার এই পুলিশ কর্মকর্তা আফ্রাতপাড়া মহল্লার জনৈক ব্যক্তিকে গাঁজাসহ আটক করার পর ১০ হাজার টাকার বিনিময়ে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলরের সাথে দেনদরবার করে ছেড়ে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

পাবনা সাঁথিয়ায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক নির্বাচিত হলেন আরশেদ আলী
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার সাঁথিয়া উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫৯৫জন শিক্ষকদের মধ্যে একাডেমিক যোগ্যতা,পেশাগত দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা এবং বিদ্যালয়ের ফলাফল ও সার্বিক বিবেচনায় ২০১২সালের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হিসেবে নির্বাচিত হলেন তেঁথুলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরশেদ আলী। জানা যায় সাঁথিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হককে সভাপতি করে ৭ সদস্য বিশিষ্ট শ্রেষ্ঠ শিক্ষক বাছাই কমিটি গত ৬ সেপ্টেম্বর উপজেলার ৫৯৫ জন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কর্মরত শিক্ষকদের মধ্যে তাঁকে শ্রেষ্ঠ শিক্ষক মনোনীত করেন।

পাবনায় পানিতে ডুবে দু’শিশুর মৃত্যু
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার সুজানগর ও বেড়া উপজেলায় শনিবার পানিতে ডুবে দু’শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার সকাল ১০ টার দিকে সুজানগরে ও দুপুর ১২ টায় বেড়া উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে। এরা হলো, সুজানগর উপজেলার ভাদুরভাগ গ্রামের আজাহার উদ্দিনের ছেলে শাহিন (৮) ও বেড়া পৌর সদরের বৃশালিখা মহল¬ার রেজাউল করিমের ছেলে  নাউন (৬)। স্থানীয় বাসিন্দা সূত্রে জানা গেছে, শাহিন সকাল ১০ টার দিকে বাড়ির পাশে পুকুরে গোসল করতে নেমে ডুবে যায়। পরিবারের লোকজন অনেক খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে পুকুর থেকে তার লাশ উদ্ধার করেন। শাহিন সুজানগর ভাদুরভাগ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ছিল। অপরদিকে দুপুর ১২ টার দিকে ৬ বছরের শিশু নাউন বাড়ির সদস্যের সঙ্গে বাড়ির পাশে হুরাসাগর নদীতে গোসল করতে নেমে পানিতে তলিয়ে যায়। পরে নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পাবনা আটঘরিয়ার বাজার গুলোতে দেদারছে বিক্রি হচ্ছে নিষিদ্ধ পিঁরানহা মাছ
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার আটঘরিয়া উপজেলার বিভিন্ন বাজারে দেদারছে বিক্রি হচ্ছে সরকারী ভাবে নিষিদ্ধ পিঁরানহা মাছ। মাছ ব্যাবসায়ীরা লাভের আশায় রুপচাঁদা মাছ নামে মিথ্যা কথা বলে বিক্রি করছে। ফলে প্রতারিত হচ্ছে এলাকার সাধারন মানুষ। নিষিদ্ধ এইমাছ খেয়ে জনস্বাস্থ হুমকীর মুখে পড়ছে। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে উপজেলার পৌর এলাকার দুই বড় বাজার আটঘরিয়া, দেবোত্তর সহ একদন্ত, খিদিরপুর, গোড়রী, কয়রাবাড়ী, চাঁদভা বাজারে এমাছ বিক্রি করে ফায়দা লুটছে অসাধু ব্যবসায়িরা। গতকাল বৃহস্পতিবার আটঘরিয়া   বাজারে গিয়ে সরাসরি দেখতে পাওয়া যায় ব্যবসায়ীরা সাধারণ মানুষকে ভুল বুঝিয়ে প্রতি কেজি ১’শ ৫০ টাকা থেকে ১’শ ৬০ টাকা দরে বিক্রি করছে। আটঘরিয়া বাজারের মৎস্য ব্যাবসায়ী আঃ জলিল বলেন আমরা এ মাছ কিনে এনে বিক্রি করে থাকি। তাছাড়া মাছ গুলো খেতে অত্যন্ত সু-স্বাদু হওয়ায় বাজারে চাহিদাটা অন্য মাছের চেয়ে একটু বেশি। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী ধলেশ্বর দাখিল মাদ্রাসার সহ-সুপার আকতারুজ্জামান ফারুকী বলেন আমি জিজ্ঞাসা করায় দোকানী আমাকে বলেছেন এটি রুপচাঁদা মাছ খেতে সু-স্বাদু। আসলে আমরা চিনতে পারি নাই। তিনি আরও বলেন প্রশাসন যদি হাটে হাটে গিয়ে এ সকল অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয় তাহলে সাধারন মানুষ প্রতারনার হাত থেকে রক্ষা পাবে। পিঁরানহা মাছ সম্পর্কে আটঘরিয়া উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রওশন আলম জানান, পিঁরানহা মাছ পুকুরে চাষ, বাজারে বিক্রি করা সরকারী ভাবে সম্পুর্ণ নিষিদ্ধ। এ কাজের সংগে যারা জড়িত রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার ঘোষিত আইন অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া যেতেপারে।

আটঘরিয়ার মাধ্যমিক বিদ্যালয় গুলোতে লাগাতার ক্লাস বর্জন কর্মসূচী পালন
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাস ঃ  সারাদেশের ন্যায় আটঘরিয়া উপজেলার বে-সরকারী স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষকরা ১৭ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে গতকাল শনিবার থেকে লাগাতার ক্লাস বর্জন কর্মসূচী পালন শুরু করেছেন। উপজেলার ২৮ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ৮টি কলেজ ও ১৯ মাদ্রাসা ৬টি ভোকেশনাল স্কুলের শিক্ষকরা একযোগে এ কর্মসূচী পালন করেন। শিক্ষকদের উলে¬খযোগ্য দাবিগুলো হল শিক্ষানীতি-২০১০ দ্রুত বাস্তবায়ন,সরকারী শিক্ষক-কর্মচারীদের সমপরিমানে বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট, বাড়িভারা, উৎসব ভাতা প্রদান, জনবল কাঠামো ২০১০ অবিলম্বে বাস্তবায়ন,শিক্ষকদের চাকুরীর বয়স ৬৫ বছর উন্নীতকরণ, নন- এমপিও ভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও করন, ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকদের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হিসাবে স্বীকৃতী প্রদান প্রভৃতি। কর্মসূচির মাধ্যমে শিক্ষকদের দাবি দাওয়া দ্রুত মেনে নিয়ে শিক্ষার পরিবেশ অতিদ্রুত ফিরিয়ে আনার আহবান জানান।

আটঘরিয়ায় সড়ক দূর্ঘটনায় ১০ জন গুরত্বর আহত
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  পাবনার আটঘরিয়ায় গতকাল শনিবার বিকেলে এক সড়ক দূর্ঘটনায় কমপক্ষে ১০ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে তিনজন কে আশংকা জনক অবস্থায় পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করাহয়েছে। প্রত্যক্ষ দর্শিরা জানায়, টেবুনিয়া-চাটমোহর সড়কের আটঘরিয়া পৌর সভার উত্তরচক (কেরানীর ঢাল) নামক স্থানে দ্রুতগামী সিএনজি এক পথচারীকে ধাক্কা দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার মাঝখানে উল্টে গেলে এ দূর্ঘটনা ঘটলে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয। আহত দের মধ্যে চাটমোহর উপজেলার রবিউল ইসলাম (৩২), অজ্ঞাতনামা (৩৫) ও পথচারী উপজেলার উত্তরচক মহল¬ার দৈনিক জনতার আটঘরিয়া প্রতিনিধি জিল¬ুর রহমান এর বড় ভাই আকতার হোসেন (৩৫) কে গুরুত্বর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষ দর্শি পাচু মিয়া জানান, সিএনজি চালকের অসাবধানতার কারণে এ দূর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ সময় উত্তেজিত জনতা রাস্তায় জড়ো হলে আটঘরিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রেণ আনে এবং  গাড়িটি আটক করে।

পাবনায় খাদেমূল হুজ্জাজের উদ্যোগে হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  মরহুম আলহাজ্ব মনুসর আলী বিশ্বাসের অন্তিম ইচ্ছা অনুযায়ী আলহাজ্ব মর্জিনা-লতিফ ট্রাষ্ট ও লতিফ ফাউন্ডেশনের সৌজন্যে প্রতিষ্ঠিত খাদেমূল হুজ্জাজের মাধ্যমে আসন্ন হজ্ব যাত্রীদের শনিবার পাবনার আরিফপুর জে,ইউ,এস ফাযিল ডিগ্রী মাদ্রাসা মিলনায়তনে দিনব্যাপী ১৩ তম হজ্ব প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয় । খাদেমূল হুজ্জাজের সভাপতি, মর্জিনা-লতিফ ট্রাষ্টের মহাসচিব ও পাবনা চেন্বার অব কমার্সের সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে কর্মশালায় হজ্জের বিভিন্ন বিষয়াবলীর উপর হাজীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য দেন, আরিফপুর জেইউএস ফাযিল (ডিগ্রী) মাদরসার অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন, মাদারীপুরের পীর আলহাজ্ব আলাউদ্দীন বিন নূরী। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, আটঘরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও মর্জিনা-লতিফ ট্রাষ্ট সদস্য মো. ইশারত আলী, চাটমোহর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট শামসুদ্দীন আহমেদ, রানা প্রোপার্টিজ এ্যান্ড ডেভেলপারস্ লি. এর চেয়ারম্যান ও ট্রাস্ট সদস্য রুহুল আমিন বিশ্বাস রানা, মাসপো গ্র“পের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও ট্রাস্ট সদস্য আলী মর্তূজা বিশ্বাস সনি, লতিফ রিয়েল এস্টেট লিঃ’র জিএম ও ট্রাষ্টের যুগ্ম-মহাসচিব মাহবুব হোসেন খান বাবলু, রবিউল মার্কেট এ্যান্ড এ্যাপার্টমেন্ট এর স্বত্তাধিকারী ও ট্রাস্ট সদস্য আলহাজ্ব রবিউল ইসলাম, বিশিষ্ট আইনজীবি ও ট্রাস্ট সদস্য শেখ আব্দুল আজিজ। কর্মশালায় হজ্জের প্রকার, ফরজ ও ওয়াজিব বিষয়ে আলহাজ্ব মাওলানা মাকসুদুর রহমান, হজ্জের প্রস্তুতি বিষয়ে আলহাজ্ব আব্দুল বাতেন, ইহরাম মাসয়ালা বিষয়ে  আফতাব উদ্দীন, মহিলাদের ইহরাম  ও হজ্জ্বের মাসয়ালা বিষয়ে আলহাজ্ব মাওলানা ইসমাঈল হোসেন, হজ্জ্বের বিস্তারিত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্বে খাদেমুল হুজ্জাজ সেক্রেটারী আলহাজ্ব মাওলানা শহিদুল ইসলাম এই প্রশিক্ষণ কর্মশালায় বিষয় ভিত্তিক আলোচনা করেন। পরে হজ্জ্ব গমনেচ্ছুদের মাঝে হজ্জ্বের মাসয়ালা বিষয়ক বিভিন্ন বই ও একটি করে ব্যাগ বিতরণ করা হয়। কর্মশালায় প্রায় ৭’শ হজ্জ্ব গমনেচ্ছু নারী-পুরুষ সহ স্থানীয় গণ্যমাণ্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরে দু’আ ও মুনাজাতের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শেষ হয়। মুনাজাত পরিচালনা করেন, আলহাজ্ব মাওলানা ক্বারী আহমাদুল্লাহ।

পাবনায় আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে র‌্যালী এবং আলোচনা সভা
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাসঃ  আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস উপলক্ষে শনিবার পাবনায় জেলা প্রশাসন, ব্র্যাক এবং গনসাক্ষরতা অভিযানের উদ্যোগে বর্নাঢ্য র‌্যালী এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শহরের মুক্ত মঞ্চে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(শিক্ষা ও উন্নয়ন) মাহাবুবুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোস্তাফিজুর রহমান। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খন্দকার শামীম হোসেন, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার একরামূল হক, ব্র্যাকের পাবনা জেলা প্রতিনিধি সেলিম রেজা, ব্র্যাকের শিক্ষা বিষয়ক কর্মকর্তা আজমল হোসেন, সেভ দ্যা সিলড্রেনের প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান প্রমুখ। এর আগে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালী পাবনার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে পাবনা মুক্তমঞ্চে গিয়ে শেষ হয়। এছাড়া চাটমোহর উপজেলায় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে সকালে বর্নাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। সরকারি কর্মকর্তা, কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি, স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক,সাংবাদিক ও সুধীজনের সমন্বয়ে  শোভাযাত্রাটি পৌর এলাকার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে স্থানীয় পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ শফিকুল ইসলাম’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. এ কে এম সামসুদ্দিন খবির। বক্তব্য দেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ হেলাল উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম রোকেয়া আজাদ, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ শামসুজ্জামান। ফরিদপুর উপজেলায় আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা পরিষদ চত্বর হতে এক র‌্যালি বনওয়ারীনগর বাজার প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালি শেষে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ডি.এম. আতিকুর রহমানের সভাপতিত্বে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুজ্জামান রঞ্জু, চিটাগং বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিপি বীর মুক্তিযোদ্ধা শামসুজ্জামান হিরা, ফরিদপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক মো: গোলাম হোসেন গোলাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি ডা. শাহাদত হোসেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার নাছির উদ্দিন, সমাজ সেবা অফিসার মো: আব্দুল মমিন, প্রেস ক্লাব সভাপতি মো: আ: হাফিজ প্রমূখ।

About

আরও পড়ুন...

কুয়েত প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতার মাতার মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল

কুয়েত প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতার মাতার মৃত্যুতে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে. হিজিল …

error: Content is protected !!