Home / দেশ / বগুড়ায় অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মাণকে কেন্দ্র করে আ’লীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষ

বগুড়ায় অবৈধভাবে দোকানঘর নির্মাণকে কেন্দ্র করে আ’লীগের দুই গ্র“পের সংঘর্ষ

নজরুল ইসলাম মিন্টু বগুড়া জেলা প্রতিনিধি ঃ বগুড়া গাবতলীর কাগইল ইউপি চেয়ারম্যান শফি আহম্মেদ স্বপন কর্তৃক স্থানীয় কাগইল বাজারে অবৈধভাবে ১০টি দোকানঘর নির্মাণ করে ইজারা দেয়ার নামে মোটা অংকের অংকের অর্থ হাতিয়ে নেয়াকে কেন্দ্র করে আ’লীগের ২ গ্র“পের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৪ ব্যক্তি আহত হওয়ার খবার পাওয়া গেছে। এছাড়া স্থানীয় আ’লীগ অফিস, বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবি এবং ইউনিয়ন পরিষদের আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। খবর পেয়ে বগুড়ার সহকারী পুলিশ সুপার মকবুল হোসেন, থানার ওসি (তদন্ত) ফাছির উদ্দিনসহ একদল পুলিশ গটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এলাকাবাসী জানান, গতকাল শুক্রবার বিকেলে ইউপি চেয়ারম্যান আ’লীগ নেতা শফি আহম্মেদ স্বপনের নেতৃত্বে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী স্থানীয় আ’লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার ছবিসহ অন্যান্য আসবাবপত্র ভাংচুর করে। এ সময় ঐ অফিসে থাকা গাবতলী পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক বিপুল মিয়া (২৮)কে রামদা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। পরে উক্ত ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মোল্লা ও ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাহফুজুল হক সুইটের নেতৃত্বে চেয়ারম্যান স্বপন গ্র“পের উপর পাল্টা হামলা চালালে মিনহাজুল ইসলাম (৩০) সহ কয়েকজন আহত হয়। এ সময় সাধারণ মানুষও তাদের সাথে যোগ দিলে স্বপন চেয়ারম্যান প্রাণের ভয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। স্বপনের পক্ষের লোকজন দাবী করেছেন ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ও আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়েছে। ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ মোল্লা জানান, স্বপন চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে তার সশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনী আ’লীগ অফিসে হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখখ হাসিনার ছবি ভাংচুর করে। তিনি আরো জানান, স্বপন চেয়ারম্যানের বিভিন্ন অবৈধ কর্মকান্ড, নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে এলাকার সাধারণ মানুষ তার বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে। আব্দুর রশিদ জানান, স্বপন ও তার লোকজন ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ভাংচুর করে আমাদের উপর দোষ চাপানোর চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান শফি আহম্মেদ স্বপনের সাথে একাধিকবার কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর্জা মোহাম্মদ আলী রেজা জানান, আমি ঘটনাটি শোনার পর থানার ওসিকে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছি। ঘটনাস্থলে যাওয়া থানার ওসি (তদন্ত) ফাছির উদ্দিনের সাথে কথা বললে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তবে ঐ এলাকায় আ’লীগের ২ গ্র“পের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে এলাকাবাসী।

আরও পড়ুন...

নগরীতে জেএসইউএস ও সিডিডি আয়োজিত প্রতিবন্ধিতা ও একীভূত উন্নয়ন বিষয়ক কর্মশালা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের নিয়ে কর্মরত জাতীয় সংগঠন সেন্টার ফর ডিজএ্যাবিলিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (সিডিডি) ও সিবিএম এর সহযোগিতায় বেসরকারী মানব উন্নয়ন মূলক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (জেএসইউএস)’র অংশগ্রহণে “প্রতিবন্ধিতা ও একীভূত উন্নয়ন বিষয়ক প্রশিক্ষণ”গত ১৯ নভেম্বর ২০২০ ইংরেজী নগরীর দেওয়ানবাজারস্থ সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে জেএসইউএস নির্বাহী পর্ষদের সদস্য ও সংস্থার উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে আয়োজিত কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সহ-সভাপতি ফারজানা রহমান শিমু, সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাহী পরিচালক ইয়াসমীন পারভীন, ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা ও পরিচালক কবি প্রাবন্ধিক সাঈদুল আরেফীন, সহ-সাধারণ সম্পাদক আলহাজ ছাবের আহমেদ, নির্বাহী সদস্য শাহানাজ বেগম, সিনিয়র এসিসটেন্ট ডিরেক্টর এম এ আসাদ, এসিসটেন্ট ডিরেক্টর শহীদুল ইসলাম, সংস্থার শাখা ব্যবস্থাপকসহ অপরাপর কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও সিডিডি-এর পক্ষ থেকে থিমেটিক এক্সপার্ট মো: জাহাঙ্গীর আলম, সিডিডি’র কোঅর্ডিনেটর ও প্রজেক্ট ম্যানেজার তানবিন আহমেদ, শাহ জালাল, জুনায়েদ রহমান, হীরা বণিক উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় প্রতিবন্ধিতা বিষয়ক ধারণা, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অন্তর্ভূক্তি, সংস্থায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অন্তর্ভূক্তি বিষয়ে ধারণা ও সকল কর্মকাণ্ডে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে সম্পৃক্তকরণের পাশাপাশি এ সংক্রান্ত কর্মপদ্ধতি নির্ধারণসহ নানা বিষয়ে আলোচনা করা হয়। কর্মশালাটি পরিচালনা করেন মো: জাহাঙ্গীর আলম। কর্মশালা পরিচালনায় মো: জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “বর্তমান সরকারের আন্তরিকতা ও নানা উদ্যোগ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। সরকারের এ সংক্রান্ত অনেক আইন ও নীতিমালা রয়েছে। কিন্তু  সে অনুযায়ি সচেতনতা না থাকায় এর সুফল প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবর্গ পাচ্ছেন না। আমাদের সকলের সম্মিলত প্রচেষ্টায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অগ্রগতি সাধিত হতে পারে।” উদ্যোগ নিতে হবে আমাদের সকলকে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ প্রসঙ্গে সংস্থার পরিচালক কবি প্রাবন্ধিক সাঈদুল আরেফীন বলেন, “জেএসইউএস প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। সংস্থা অপরাপর কর্মসূচীতে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অংশগ্রহণ এবং তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সর্বোচ্চ গুরুত্বারোপ করে।” ভবিষ্যতে সকল প্রকল্প গ্রহণ এবং বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধিতা ইস্যুটি সর্বাগ্রে বিবেচনা করা হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। -প্রেস বিজ্ঞপ্তি বার্তা প্রেরক মো: আরিফুর রহমান প্রোগ্রাম ম্যানেজার (এসডিপি)