Home / বিশ্ব / বাহরাইন চেম্বারের সঙ্গে বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় মতবিনিময় সভাটি ছবি সংগৃহীত

বাহরাইন চেম্বারের সঙ্গে বাংলাদেশ রাষ্ট্রদূতের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় মতবিনিময় সভাটি ছবি সংগৃহীত
অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় মতবিনিময় সভাটি ছবি সংগৃহীত

বাহরাইনে বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মুহাম্মাদ নজরুল ইসলামের সঙ্গে বাহরাইনে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বাহরাইন চেম্বারের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। দূতাবাসের এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, অনলাইনে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেন বাহরাইন চেম্বারের চেয়ারম্যান সামির নাস, সিইও শাকের ইব্রাহিম ও ডেপুটি সিইও আবদুল্লাহ বাদের। অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয় মতবিনিময় সভাটি । আলোচনার শুরুতেই চেয়ারম্যান সামির নাস রাষ্ট্রদূতকে বাহরাইনে স্বাগত জানান এবং বন্ধুপ্রতিম দুই দেশের অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদারে গুরুত্বারোপ করেন। মুহাম্মাদ নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের ফার্মাসিউটিক্যালস, আইসিটি, গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন সেক্টরে বাহরাইনের বাণিজ্য বৃদ্ধির সম্ভাবনা তুলে ধরেন। এ ছাড়া রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ঘোষিত ১০০টি বিশেষ অর্থনৈতিক জোনে বাহরাইনকে বিনিয়োগের আহ্বান জানান। এ বৈঠকে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেন বাহরাইন চেম্বারের চেয়ারম্যান সামির নাস, সিইও শাকের ইব্রাহিম ও ডেপুটি সিইও আবদুল্লাহ বাদের এ বৈঠকে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেন বাহরাইন চেম্বারের চেয়ারম্যান সামির নাস, সিইও শাকের ইব্রাহিম ও ডেপুটি সিইও আবদুল্লাহ বাদের। বাহরাইন চেম্বারের পক্ষে সামির নাস রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে একমত পোষণ করেন এবং দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বৃদ্ধির ক্ষেত্রে আন্তরিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। বিশেষ করে তিনি ফার্মাসিউটিক্যালস সেক্টরে বাংলাদেশি স্বনামধন্য ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের পণ্য বাহরাইনে উৎপাদন করার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এ লক্ষ্যে দুই দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পারস্পরিক সফর আয়োজন এবং নেতাদের অংশগ্রহণে অচিরেই একটি ওয়েবিনার বা অনলাইন মতবিনিময় সভা আয়োজনে রাষ্ট্রদূতের প্রস্তাবে সামির নাস আন্তরিক আগ্রহ প্রকাশ করেন। দুই দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করার ব্যাপারে দুই পক্ষই সম্মত হয়। রাষ্ট্রদূত এ বৈঠকে বাহরাইন সরকারের করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গৃহীত ব্যবস্থাগুলোর প্রশংসা করেন। মহামারি–পরবর্তীকালে বাংলাদেশ থেকে বাহরাইনে দক্ষ জনশক্তি নিয়োগের ব্যাপারেও গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা হয়।

About admin

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!