Home / শীর্ষ সংবাদ / বেনাপোলে পুলিশের অভিযান ভারতীয় মাদক সহ আটক-৭

বেনাপোলে পুলিশের অভিযান ভারতীয় মাদক সহ আটক-৭

মোঃ রাসেল ইসলাম,বেনাপোল প্রতিনিধি: বেনাপোল পোর্ট থানাধীন বিভিন্ন এলাকায় পৃথক অভিযানে ১শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট,২২বোতল ফেনসিডিল,৬ বোতল বাংলা মদ সহ সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার(১২ জানুয়ারি) দিনভর বেনাপোল পোর্ট থানাধীন বিভিন্ন এলাকা থেকে ভারতীয় মাদক সহ সাতজনকে হাতেনাতে আটক করা হয়।

আটক আসামীরা হলেন, রঘুনাথপুর গ্রামের মৃত: কাউসার আলীর ছেলে রিয়াজুল ইসলাম(৪০), বোয়ালিয়া গ্রামের আবুল মোল্লার ছেলে জাকির হোসেন(৩৫),কোতয়ালী থানার বাহাদুরপুর গ্রামের মহাসিন এর ছেলে জাহিদ হাসান(৩০),বাহাদুরপুর গ্রামের মৃত: আক্তার হোসেনের ছেলে হযরত আলী(২৬),পালবাড়ি গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে মশিউর রহমান(৩৫),কাশিয়ানী থানার পারকরফা গ্রামের মৃত: তৈয়বুর রহমান এর ছেলে মিল্টন রহমান(৩০) ও কোতয়ালী থানার বানিয়াবহু পশ্চিমপাড়া এলাকার মৃত: আবুল হোসেনের ছেলে শাহিন হোসেন(৩৪)।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বেনাপোলের বিভিন্ন এলাকায় এসআই রোকনুজ্জামান,এসআই মোস্তাফিজুর রহমান,এএসআই মাসুম পারভেজ,এএসআই আতিয়ার রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে ইয়াবা,ফেনসিডিল,মদ সহ সাতজনকে হাতেনাতে আটক করা হয়। তিনি আরো বলেন, আটক আসামীদেরকে মাদক আইনে মামলা দিয়ে আগামীকাল যশোর বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হবে।

About banglarbarta.com

আরও পড়ুন...

কুয়েতে তরুন সফল উদ্যোক্তা

কুয়েতে সাধারণ এক গাড়িচালক হিসেবে প্রবাস জীবন শুরু। সেই থেকে কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে ধীরে ধীরে সফল ব্যবসায়ীতে পরিণত হয়েছেন । বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে নিত্যব্যবহার্য পণ্য আমদানি করে এরই মধ্যে দেশটিতে বিশাল বাজার তৈরি করে ফেলেছেন তরুণ এই প্রবাসী।শরীফ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।।  মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম (৩৮)। বন্ধুরা তাঁকে সম্মান করে মুফতি নামে ডাকেন। গ্রামের বাড়ি পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার বেকুটিয়া গ্রামে। শহিদুল ইসলামের বাবা মুহাম্মদ সুলতান আলী পেশায় একজন কৃষক। বাংলাদেশে থাকার সময় শহিদুল ইসলাম রাজধানীর মিরপুরের মাদ্রাসা দারুল উলুম থেকে দাওরায়ে হাদিস বিষয়ে পড়াশোনা করেন এবং সর্বোচ্চ ডিগ্রি মুফতি উপাধি অর্জন করেন। এরপর কিছুদিন দেশে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতাও করেন তিনি। শহিদুল ইসলাম জানান, ২০০৫ সালে কুয়েতে এসে কুয়েতি  নাগরিকের ওখানে গাড়িচালক হিসেবে তিনি দুই বছর কাজ করেন। সে কাজের সূত্রে কুয়েতের বিভিন্ন স্থান ও বাজার সম্পর্কে পরিচিত হন তিনি। পরে গাড়ি চালানো বাদ দিয়ে তিনি কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রয়কর্মীর চাকরি  করেন।  পাশাপাশি ছোট খাট …

error: Content is protected !!