Home / কুয়েত / সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের যুবক অহিদুল্লাহ মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ ১৫ মাসেও হদিস মিলেনি,পরিবারে চলছে আহাজারী, স্ত্রী’র বিশ্বাস স্বামী বেচেঁ আছেন।

সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের যুবক অহিদুল্লাহ মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ ১৫ মাসেও হদিস মিলেনি,পরিবারে চলছে আহাজারী, স্ত্রী’র বিশ্বাস স্বামী বেচেঁ আছেন।

বিশেষ সংবাদদাতা ঃ আল আমিন রানা- বাংলার বার্তা- উচ্চ বেতনের আশায় আদম ব্যাপারীর প্রতারানার শিকার হয়ে ১৫ মাস আগে সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নরে ভিটিপাড়া গ্রাম থেকে অবৈধ ভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়ে আছে মোঃ  অহিদুল্লাহ। এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছে স্বজনরা। নিখোঁজ হয়ে যাবার পর থেকে গ্রামে শোকের মাতম। নিখোঁজদের আনতে আদম ব্যাপারীদের উপর চাপ দিলে নানা তাল বাহানা শুরু করেন। উল্টো খোজঁ দেওয়ার নামে ইতিমধ্য বিভিন্ন জায়গায় টাকা দিয়ে চরম বিপদে পরেছেন নিখোঁজদের পরিবার। রাতারাতি কালো টাকার মালিক হওয়ার স্বপ্ন দেখে দালাল চত্র“ অল্প পুঁজিতে নিরহ সহজ সরল গ্রামবাসিদের ফাঁেদ ফেলে মালয়েশিয়া নেওয়ার লোভ দেখিয়ে যাচ্ছে। এভাবে সাগর পথে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে ইতিপূর্বে সোনারগাঁওয়ের নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের  মোঃ কাদির এর ছোটু ছেলে মোঃ অহিদুল্লাহ (৩২) হদিস নেই ১৫ মাস। মোঃ অহিদুল্লার চার সন্তানের পিতা। সন্তানদের বয়স অনিকা (১১) ছাবিয়া (৯) ফয়সাল (৭) তানবির (৪) বছর  অর্থের সন্ধানে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ। স্থনীয় গ্রামবাসি নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনায় ভিটিপাড়া গ্রামের ঘরে ঘরে স্বজনদের মাঝে কান্নার রোল পড়েছে। ছেলে, স্বামী, সন্তান, হারানোর বেদনায় পরিবার পরিজনের আহাজারীতে পরিবেশ ভারি হয়ে উঠেছে। উক্ত গ্রামে খেটে খাওয়া মেহনতি সহজ সরল একটি ছোটু সাংসারে আহাজারি অধ্য ১৫ মাস জুড়ে কুড়ে কুড়ে স্বামী হারানোর বেদনায় নিখোঁজ হয়ে যাওয়া মোঃ অহিদুল্লা’র বিবাহিতা গৃহবধু খাদিজা বেগম (২৮) তার উড়না দিয়ে বাবরবার চোঁখ মুছে দুচোখের পানিতে বুক বিজিয়ে বাকরুদ্ধ কন্ঠে সাংবাদিকদের বলেন- মাত্র ৮০ হাজার টাকায় মালয়েছিয়া যাওয়ার দালার আড়াইহাজারের খইরা গ্রামবাসি আলমের মাধ্যমে আজ থেকে দেড়বছর আগে সমুদ্র পথে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার পর থেকে আর কোন খোজ পাওয়া যায়নি। আজো স্বামীর জন্য অপেক্ষায় চার সন্তান নিয়ে পথ চেয়ে বসে আছেন খাদিজা বেগম। সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম পুত্র শোকে কাতর বৃদ্ধ মা ও বাবা,আর স্বামী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর থেকে শোকে আহাজারিতে ছোট্র নাবালেক চার চারটি সন্তানসহ  খাদিজা বেগম। সেই সাথে আরো বলেন-স্বামী ১৫ মাস আগে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর থেকে চারটি শিশু সন্তানদের বুকে নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে ১৫টি মাস মানুষের বাড়ি বাড়ি কাজ করে সন্তানদের মানুষ করাতে কাটিয়ে দিয়েচ্ছি। স্বামী রিক্সা চালাতো তার পাশাপাশি  লাকড়িসহ  বিভিন্ন দরনের কাজ করতো তা দিয়ে কোন রকম সংসার চললেও তাতে কোন দৃঃখ ছিল না তার। স্বামী সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর জীবিত আছে না মরে গেছে এখন কোথায় নিখোঁজ হওয়ার বর্ণনা দিতে গিয়ে বার বার কেঁদে ওঠে খাদিজা বেগম। তবে তার বিশ্বাস তার স্বামী আজো বেচেঁ আছেন একদিন না একদিন আমার চারটি এতিম সন্তানের ভাগ্যে সে ফিড়ে আসবেন। মালয়েশিয়ায় আদমপারকারী সিন্ডিকেটের বিচারের দাবি পরিবার ও গ্রামবাসি দ্রুত এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে নিখোঁজ অহিদুল্লাকে ফিরিয়ে দিতে সরকারের নিকট দাবি জানিয়েছেন।
ছবিতে সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের অহিদুল্লাহ
সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ ১৫ মাসেও হদিস মিলেনি

সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের যুবক অহিদুল্লাহমালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ ১৫ মাসেও হদিস মিলেনি,পরিবারে চলছে আহাজারী, স্ত্রী’র বিশ্বাস স্বামী বেচেঁ আছেন।বিশেষ সংবাদদাতা ঃ আল আমিন রানা- উচ্চ বেতনের আশায় আদম ব্যাপারীর প্রতারানার শিকার হয়ে ১৫ মাস আগে সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নরে ভিটিপাড়া গ্রাম থেকে অবৈধ ভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ হয়ে আছে মোঃ  অহিদুল্লাহ। এদিকে পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তিকে হারিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম মানবেতর জীবন যাপন করছে স্বজনরা। নিখোঁজ হয়ে যাবার পর থেকে গ্রামে শোকের মাতম। নিখোঁজদের আনতে আদম ব্যাপারীদের উপর চাপ দিলে নানা তাল বাহানা শুরু করেন। উল্টো খোজঁ দেওয়ার নামে ইতিমধ্য বিভিন্ন জায়গায় টাকা দিয়ে চরম বিপদে পরেছেন নিখোঁজদের পরিবার। রাতারাতি কালো টাকার মালিক হওয়ার স্বপ্ন দেখে দালাল চত্র“ অল্প পুঁজিতে নিরহ সহজ সরল গ্রামবাসিদের ফাঁেদ ফেলে মালয়েশিয়া নেওয়ার লোভ দেখিয়ে যাচ্ছে। এভাবে সাগর পথে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে ইতিপূর্বে সোনারগাঁওয়ের নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের  মোঃ কাদির এর ছোটু ছেলে মোঃ অহিদুল্লাহ (৩২) হদিস নেই ১৫ মাস। মোঃ অহিদুল্লার চার সন্তানের পিতা। সন্তানদের বয়স অনিকা (১১) ছাবিয়া (৯) ফয়সাল (৭) তানবির (৪) বছর  অর্থের সন্ধানে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ। স্থনীয় গ্রামবাসি নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার ঘটনায় ভিটিপাড়া গ্রামের ঘরে ঘরে স্বজনদের মাঝে কান্নার রোল পড়েছে। ছেলে, স্বামী, সন্তান, হারানোর বেদনায় পরিবার পরিজনের আহাজারীতে পরিবেশ ভারি হয়ে উঠেছে। উক্ত গ্রামে খেটে খাওয়া মেহনতি সহজ সরল একটি ছোটু সাংসারে আহাজারি অধ্য ১৫ মাস জুড়ে কুড়ে কুড়ে স্বামী হারানোর বেদনায় নিখোঁজ হয়ে যাওয়া মোঃ অহিদুল্লা’র বিবাহিতা গৃহবধু খাদিজা বেগম (২৮) তার উড়না দিয়ে বাবরবার চোঁখ মুছে দুচোখের পানিতে বুক বিজিয়ে বাকরুদ্ধ কন্ঠে সাংবাদিকদের বলেন- মাত্র ৮০ হাজার টাকায় মালয়েছিয়া যাওয়ার দালার আড়াইহাজারের খইরা গ্রামবাসি আলমের মাধ্যমে আজ থেকে দেড়বছর আগে সমুদ্র পথে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার পর থেকে আর কোন খোজ পাওয়া যায়নি। আজো স্বামীর জন্য অপেক্ষায় চার সন্তান নিয়ে পথ চেয়ে বসে আছেন খাদিজা বেগম। সংসারের একমাত্র উপার্জনক্ষম পুত্র শোকে কাতর বৃদ্ধ মা ও বাবা,আর স্বামী নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর থেকে শোকে আহাজারিতে ছোট্র নাবালেক চার চারটি সন্তানসহ  খাদিজা বেগম। সেই সাথে আরো বলেন-স্বামী ১৫ মাস আগে নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর থেকে চারটি শিশু সন্তানদের বুকে নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে ১৫টি মাস মানুষের বাড়ি বাড়ি কাজ করে সন্তানদের মানুষ করাতে কাটিয়ে দিয়েচ্ছি। স্বামী রিক্সা চালাতো তার পাশাপাশি  লাকড়িসহ  বিভিন্ন দরনের কাজ করতো তা দিয়ে কোন রকম সংসার চললেও তাতে কোন দৃঃখ ছিল না তার। স্বামী সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে চলে যাওয়ার পর জীবিত আছে না মরে গেছে এখন কোথায় নিখোঁজ হওয়ার বর্ণনা দিতে গিয়ে বার বার কেঁদে ওঠে খাদিজা বেগম। তবে তার বিশ্বাস তার স্বামী আজো বেচেঁ আছেন একদিন না একদিন আমার চারটি এতিম সন্তানের ভাগ্যে সে ফিড়ে আসবেন। মালয়েশিয়ায় আদমপারকারী সিন্ডিকেটের বিচারের দাবি পরিবার ও গ্রামবাসি দ্রুত এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে নিখোঁজ অহিদুল্লাকে ফিরিয়ে দিতে সরকারের নিকট দাবি জানিয়েছেন।

ছবিতে সোনারগাঁও নোয়াগাঁও ইউনিয়নের ভিটিপাড়া গ্রামের অহিদুল্লাহ       সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে নিখোঁজ ১৫ মাসেও হদিস মিলেনি

About

আরও পড়ুন...

প্রবাসী জীবনের ইতি টেনে মাতৃভূমির পথে কবি

কুয়েতে প্রবাসী বাংলাদেশি আগমনের শুরু থেকে যারা বাংলা সাহিত্য চর্চা এবং তা প্রতিষ্ঠা করতে বিশেষ …

error: বাংলার বার্তা থেকে আপনাকে এই পৃষ্ঠাটির অনুলিপি করার অনুমতি দেওয়া হয়নি, ধন্যবাদ