Home / দেশ / পাবনা ঈশ্বরদীতে জ্বালানি তেল গোডাউনে ভয়াবহ আগুন

পাবনা ঈশ্বরদীতে জ্বালানি তেল গোডাউনে ভয়াবহ আগুন

পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাস ঃ পাবনা ঈশ্বরদীতে জ্বালানি তেল ও  গ্যাস সিলিন্ডার গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে নগদ টাকাসহ ৫০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ভস্মিভূত হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে শহরের শেরশাহ রোডস্থ নৃপেন্দ্রনাথ কুন্ডু এন্ড সন্স নামক পেট্রোলিয়াম এজেন্সি ও গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। সিলিন্ডার গ্যাস, পেট্রোল-ডিজেল, কেরোসিন, মোবিলের গোডাউন থেকে আগুন পার্শ্ববতি বাড়িতে ছড়িয়ে পড়লে ৩ টি বাড়িসহ ওই প্রতিষ্ঠানের সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনের লেলিহান শিখা ও কালো ধোঁয়ায় শহর আচ্ছন্ন হয়ে গেলে ঈশ্বরদীতে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। এসময় শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আগুন নেভাতে গিয়ে ৪ জন আহত হয়েছেন বলে দমকল বাহিনী সূত্র জানায়, তবে প্রাথমিকভাবে তাদের নাম জানা যায়নি। দমকল বাহিনীর ঈশ্বরদী, লালপুর ও পাবনার ৩ টি ইউনিট, ঈশ্বরদী থানা পুলিশ, র‌্যাব, সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিষ্ঠান নৃপেন্দ্রনাথ কুন্ডু এন্ড সন্স এর স্বত্বাধিকারী অখিল কুমার কুন্ডু জানান, হঠাৎ গোডাউনের আগুন থেকে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তিনি বলেন, সব মিলিয়ে ক্ষতির পরিমান ৫০ লাখ টাকা ছাড়িয়ে গেছে। গোডাউনে সিলিন্ডার গ্যাস, পেট্রোল-ডিজেল, কেরোসিন, মোবিলসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুনের ভয়াবহতা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়। সে সময় ঈশ্বরদীতে দমকা বাতাস থাকায় আগুন মুহুর্তেই ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশের বাড়িতে। আগুন লাগার পরপরই ঈশ্বরদী শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। ঈশ্বরদী দমকল বাহিনীর স্টেশন অফিসার শহিদুল ইসলাম জানান ঈশ্বরদী, পাবনা ও লালপুরের ৩ টি ইউনিটের সমস্ত কর্মীরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকবর হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। এলাকাবাসী জিল্লুর রহমান জানান, আগুনের তিব্রতা এতই ছিল যে, আগে কখনও এমন দেখিনি। ঘটনাটি দিনের বেলা হওয়ায় হতাহতের ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে।
পাবনায় প্রকাশ্যে রাজপথে হাতুরি থেরাপি বাধাদানকারীদের গুলি করার হুমকি
পাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাস ঃ  পাবনা মধ্য শহরে প্রকাশ্যে দিনের বেলায় এক মধ্য বয়সিকে হাতুরি থেরাপি দেওয়ায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ সময় প্রত্যাক্ষদর্শীরা লোকটিকে রক্ষার চেষ্টা করলে দুর্বত্তরা গুলি করে হত্যার হুমকি দেয়। প্রত্যাক্ষদর্শলা জানান, রোববার দুপুর সোয়া ২টায় পাবনা শহরের আব্দুল হামিদ রোডে ব্রিজের মাথায় অবস্থিত ফকির হোন্ডা রিপেয়ারিং এর দোকান থেকে ফকিরকে কতিপয় সন্ত্রাসীরা জোর পুর্বক তুলে নিয়ে মেইন রোড দিয়ে টেনে হিচরে নিয়ে যায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা ফকিরকে হাতুড়ি দিয়ে পিটাতে থাকে। প্রত্যাক্ষদর্শীরা এ সময় পিটানোর প্রতিবাদ করলে সন্ত্রাসীরা বলে এগিয়ে এলে গুলি করা হবে। প্রকাশ্যে রাজপথে একজন অতি পরিচিত মটর সাইকেল মিস্ত্রিকে হাতুরি দিয়ে পেটানোয় শহরে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে পাবনা থানা পুলিশকে বিষয়টি জানানো হলে সন্ত্রাসীরা ফকিরকে রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়। প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানায়, ফকির মিস্ত্রিকে দুর্বত্তরা যখন তাতী মার্কেটের ভিতর দিয়ে টেনে হিচরে নিয়ে যাচ্ছিল তখন তাতী মার্কেটের গেটের পার্শ্বে প্রায় ১০/১২জন সশস্ত্র পুলিশ অবস্থান করছিল। বিষয়টি তারা দেখেও না দেখার ভান করে। আরো জানা যায়, ফকির মিস্ত্রির গ্রামের বাড়ি ফকিরপুরের শেখ সাইফুলের বখাটে ছেলের সাথে ফকির মিস্ত্রির ছেলের ঝগড়া হয়। এ নিয়ে ফকির মিস্ত্রির ছেলে শেখ সাইফুলকে রাস্তা দিয়ে যাবার সময় ধাওয়া করে। এ ঘটনায় শেখ সাইফুলের ছেলে মফিজুল ও সাইদুল প্রতিশোধ নিতে তারা আরো কয়েকজনকে সাথে নিয়ে ফকির মিস্ত্রির দোকানে এসে তাকে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় মফিদুল ও সাইদুলসহ সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে ফকির মিস্ত্রিকে হাতুরি দিয়ে পিটাতে থাকে। ঘটনাটি শহরে টক অব দা টাউনে পরিণত হয়। বিশেষ করে ফকির মিস্ত্রি পাবনার মটর সাইকেল মালিকসহ স্থানীয়দের কাছে ফকির ওস্তাদ হিসেবে বিশেষভাবে পরিচিত। তবে পাবনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজি হানিফুল ইসলামের দ্রুত পদক্ষেপের ফলে বড় ধরনের একটি অনাকাংখিত ঘটনা থেকে ফকির ওস্তাদ মুক্তি পেয়েছেন বলে মনে করেন, থানায় অবহিত করেছেন যে সব প্রত্যক্ষদর্শীরা।

পাবনা ঈশ্বরদীতে জ্বালানি তেল গোডাউনে ভয়াবহ আগুনপাবনা থেকে মোবারক বিশ্বাস ঃ পাবনা ঈশ্বরদীতে জ্বালানি তেল ও  গ্যাস সিলিন্ডার গোডাউনে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে নগদ টাকাসহ ৫০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ভস্মিভূত হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে শহরের শেরশাহ রোডস্থ নৃপেন্দ্রনাথ কুন্ডু এন্ড সন্স নামক পেট্রোলিয়াম এজেন্সি ও গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে এই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। সিলিন্ডার গ্যাস, পেট্রোল-ডিজেল, কেরোসিন, মোবিলের গোডাউন থেকে আগুন পার্শ্ববতি বাড়িতে ছড়িয়ে পড়লে ৩ টি বাড়িসহ ওই প্রতিষ্ঠানের সব মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। আগুনের লেলিহান শিখা ও কালো ধোঁয়ায় শহর আচ্ছন্ন হয়ে গেলে ঈশ্বরদীতে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। এসময় শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আগুন নেভাতে গিয়ে ৪ জন আহত হয়েছেন বলে দমকল বাহিনী সূত্র জানায়, তবে প্রাথমিকভাবে তাদের নাম জানা যায়নি। দমকল বাহিনীর ঈশ্বরদী, লালপুর ও পাবনার ৩ টি ইউনিট, ঈশ্বরদী থানা পুলিশ, র‌্যাব, সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিষ্ঠান নৃপেন্দ্রনাথ কুন্ডু এন্ড সন্স এর স্বত্বাধিকারী অখিল কুমার কুন্ডু জানান, হঠাৎ গোডাউনের আগুন থেকে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। তিনি বলেন, সব মিলিয়ে ক্ষতির পরিমান ৫০ লাখ টাকা ছাড়িয়ে গেছে। গোডাউনে সিলিন্ডার গ্যাস, পেট্রোল-ডিজেল, কেরোসিন, মোবিলসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুনের ভয়াবহতা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়। সে সময় ঈশ্বরদীতে দমকা বাতাস থাকায় আগুন মুহুর্তেই ছড়িয়ে পড়ে আশেপাশের বাড়িতে। আগুন লাগার পরপরই ঈশ্বরদী শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। ঈশ্বরদী দমকল বাহিনীর স্টেশন অফিসার শহিদুল ইসলাম জানান ঈশ্বরদী, পাবনা ও লালপুরের ৩ টি ইউনিটের সমস্ত কর্মীরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা করে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আকবর হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। এলাকাবাসী জিল্লুর রহমান জানান, আগুনের তিব্রতা এতই ছিল যে, আগে কখনও এমন দেখিনি। ঘটনাটি দিনের বেলা হওয়ায় হতাহতের ঘটনা থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে।

About

আরও পড়ুন...

অভাবের ঈদ স্বভাবের ঈদ

সব মিলিয়ে দেশের মানুষদের মাঝে এবারের ঈদ হয়ে উঠেছে অর্থনৈতিক দুর্দশা আর হতাশায় মিলেমিশে এক …

error: বাংলার বার্তা থেকে আপনাকে এই পৃষ্ঠাটির অনুলিপি করার অনুমতি দেওয়া হয়নি, ধন্যবাদ