আপডেট :»-
  বাংলা-

কুয়েতে স্থানীয়দের পাশাপাশি প্রবাসীদের বিনামূল্যে টিকা প্রদান

কুয়েতে স্থানীয়দের পাশাপাশি বাংলাদেশ,ভারত,মিশর সহ বিভিন্ন প্রবাসীদের বিনামূল্যে  টিকা প্রদান করা হচ্ছে।মিশরেফ ছাড়াও বিভিন্ন অঞ্চলে্একাধিক টিকাদান কেন্দ্র চালু করা হয়েছে।  কুয়েতে করোনা ভাইরাস নতুন স্ট্রেইন সংক্রামণ বেড়ে যাওয়ায় গত ৭ই মার্চ থেকে শুরু হওয়া দ্বিতীয় দফা কারফিউ প্রতিদিন সন্ধ্যায় ৭ টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত করা হয়েছে। আগামী ২২ এপ্রিল পর্যন্ত পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত চলবে এবং এছাড়াও স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে বাকী সময়ে চলছে স্বাভাবিক কার্যক্রম। একি সাথে চলছে টিকাদান কার্যক্রম। । কুয়েতের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও উক্ত প্রতিষ্ঠান সমূহে কর্মরত বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদেরকেও  টিকা প্রদান করা হচ্ছে।‌ দ্রুত স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে ভিন্ন অঞ্চলে টিকাদান কেন্দ্র চালু করা হয়েছে। বর্তমানে বিভিন্ন মসজিদ ও কো-অপারেটিভ সোসাইট গুলো কর্মরত বাংলাদেশ,ভারত,মিশর সহ বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের টিকা দেওয়া হচ্ছে এবং ৩ মাস পর দেওয়া হবে দ্বিতীয় ডোজ। স্থানীয় ও প্রবাসীদের টিকার আওতায় আনতে ক্লিনিক গুলোতে টিকা প্রদানের প্রস্তুতি নিচ্ছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। স্থানীয় গণমাধ্যম আরব টাইম ও আল রাই সূত্রে জানা যায়, এখন পর্যন্ত কুয়েতি নাগরিক ও বিভিন্ন দেশের  প্রবাসীরা মিলে প্রায় ৫ লাখ মানুষ করোনা টিকা গ্রহন করেছে।  টিকা গ্রহন করার জন্য কুয়েতি ও বিভিন্ন দেশের প্রবাসীরা সহ প্রায় ১২ লাখ মানুষ অনলাইনে নিবন্ধন করেছে। কুয়েতে টিকাদান কেন্দ্রে ফাইজার এবং অক্সফোড দুই ধরণের টিকা দেওয়া হচ্ছে ।
  ২০২০ সালের ডিসেম্বরে কুয়েতের প্রধানমন্ত্রী শেখ সাবাহ আল খালিদ,স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. বাসিল আল সাবাহ প্রথম টিকা গ্রহণের মধ্যদিয়ে   টিকা দান কর্মসূচি শুরু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*

error: বাংলার বার্তা থেকে আপনাকে এই পৃষ্ঠাটির অনুলিপি করার অনুমতি দেওয়া হয়নি, ধন্যবাদ